বাড্ডা থানায় তিন মামলা গোল্ডেন মনিরের নামে

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : রাজধানীর মেরুল বাড্ডা এলাকায় র‌্যাবের অভিযানে মাদক, অস্ত্র ও কোটি টাকাসহ গ্রেপ্তার মনির হোসেন ওরফে ‘গোল্ডেন মনিরের’ বিরুদ্ধে তিনটি মামলা হয়েছে।

বাড্ডা থানায় রোববার (২২ নভেম্বর) সকালে এসব মামলা করে র‌্যাব।

পাশাপাশি তাকে হস্তান্তর করা হয় থানায়।

বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পারভেজ ইসলাম জানান- মনির হোসেন ওরফে গোল্ডেন মনিরের ব্যাপারে মামলাগুলো হয়েছে মাদক, অস্ত্র ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে।

ওসি এও জানান- গোল্ডেন মনিরকে আদালতে তুলে প্রতিটি মামলায় সাত দিন করে রিমান্ড চাওয়া হবে।

শুক্রবার (২০ নভেম্বর) মধ্যরাত থেকে শনিবার (২১ নভেম্বর) সকাল পর্যন্ত মেরুল বাড্ডায় মনির হোসেন ওরফে গোল্ডেন মনিরের বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব-৩।

ছয় তলা ওই বাড়িতে নগদ ১ কোটি ৯ লাখ টাকা, ৯ লাখ টাকা মূল্যমানের ১০টি দেশের বৈদেশিক মুদ্রা, চার লিটার মদ, ৬শ ভরি স্বর্ণ (৮ কেজি), একটি বিদিশি পিস্তল এবং কয়েক রাউন্ড গুলি পাওয়ার কথা অভিযান শেষে জানানো হয় র‌্যাবের পক্ষ থেকে।

বিষয়গুলো নিয়ে গণমাধ্যমের সামনে কথা বলেন র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার প্রধান আশিক বিল্লাহ।

মনির হোসেন ‘গোল্ডেন মনির’ নামে পরিচিত হলেও তিনি আসলে স্বর্ণ চোরাকারবারি জানিয়েছে র‌্যাব।

পাশাপাশি বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)’র পক্ষ থেকেও।

বিজ্ঞাপন

র‌্যাব আরও জানিয়েছে- গোল্ডেন মনির সোনা চোরাকারবারি ছাড়াও ভূমির দালালিসহ রাজউকের (রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ) কিছু অসাধু কর্মকর্তার সঙ্গে যোগসাজশ করে রাজধানীতে বেশকিছু প্লট হাতিয়ে নিয়েছেন।

পাশাপাশি মনির হোসেন হুন্ডি ব্যবসায়ও ছিলেন বলে জানানো হয় এ এলিট ফোর্সের পক্ষ থেকে।

গোল্ডেন মনির শুল্কমুক্ত গাড়ি এনে চড়া দামে বিক্রি করতেন। এ ধরনের কাগজপত্রে ত্রুটির কথা জানানো হয়েছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে।

পাশাপাশি মনির হোসেনের বাড়িতে অভিযানকালে দুটি গাড়ি জব্দ করে র‌্যাব। যেগুলোর কোনও বৈধ কাগজপত্র ছিলো না বলেই জানিয়েছেন আশিক বিল্লাহ।

মনির হোসেন ওরফে গোল্ডেন মনিরকে নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালসহ গোয়েন্দা সংস্থার পক্ষ থেকেও বক্তব্য এসেছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, দুর্নীতি করে কেহই রেহাই পাবে না। এরই অংশ হিসেবে মনির হোসেনের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছে।

রাজউকের সিল নকল করে ভূমিদস্যুতার একটি এবং দুদকের একটা মামলা রয়েছে গোল্ডেন মনিরের বিরুদ্ধে।

পাশাপাশি এই মনির হোসেন ওরফে গোল্ডেন মনির এক সময় বিএনপিকে অর্থ যোগান দিতো বলেও জানা গেছে।

এ বিষয়ক : হুন্ডি ব্যবসায়ী-ভূমির দালাল গোল্ডেন মনিরের বাসায় র‌্যাবের অভিযান, ৬০০ ভরি স্বর্ণ-কোটি টাকা জব্দ

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.