জো বাইডেন ও কমলা দেবী হ্যারিসকে বিশ্বনেতাদের অভিনন্দন

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে বয়স্ক এবং সর্বোচ্চ ভোট পাওয়া প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং দেশটির ইতিহাসে প্রথম নারী ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা দেবী হ্যারিসকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বিশ্ব নেতারা।

ভারত, কানাডা, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মান, স্পেন, গ্রিস, ইরান, কাতার ও ইউক্রেনের নেতারা জো বাইডেনের জন্য পাঠিয়েছেন শুভেচ্ছাবার্তা।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইট বার্তায় লিখেছেন- জো বাইডেন দেখার মতো জয় পেয়েছেন। এজন্য তাঁকে অভিনন্দন।

কমলা দেবী হ্যারিসের মা ভারতীয় ছিলেন। ফলে কমলা দেবী হ্যারিসের বিজয় সম্পর্কে মোদি লিখেছেন- আপনার সাফল্য পথপ্রদর্শক এবং সমস্ত ভারতীয় ও আমেরিকানদের জন্য গর্বের বিষয়।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো জো বাইডেন ও কমলা দেবী হ্যারিসকে অভিনন্দন জানিয়ে টুইট করার পর একটি বিবৃতিতে প্রকাশ করেছেন।

যাতে তিনি বলেছেন, ‘কানাডা ও আমেরিকার মধ্যে সম্পর্ক অনন্য- যা বিশ্বে ব্যতিক্রমী।’

‘দুই দেশের সরকার শান্তি ও ঐক্য প্রতিষ্ঠায়, বাণিজ্যিক সমৃদ্ধি অর্জন, দেশের নিরাপত্তার উন্নয়ন এবং বিশ্ব জলবায়ু সমস্যা মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করবে।’

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ এক টুইট বার্তায় বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, ‘বর্তমানের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলা করতে আমাদেরকে একসঙ্গে অনেক কাজ করতে হবে। আসুন একসঙ্গে কাজ করি।’

জার্মান চ্যান্সেলর এঙ্গেলা মারকেল জানিয়েছেন- তিনি জো বাইডেনের সঙ্গে ভবিষ্যতে সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করার জন্য অপেক্ষা করছেন।

বিজ্ঞাপন

‘আমাদের সময়কার যে বিশাল চ্যালেঞ্জগুলো রয়েছে, তা মোকাবিলায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপ তাঁদের বন্ধুত্বের সম্পর্ক অটুট রেখে কাজ করবে।’

স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সাঞ্চেস জো বাইডেন ও কমলা দেবী হ্যারিসকে অভিনন্দনবার্তায় বলেন, ‘গুডলাক’।

পাশাপাশি তাঁদের সঙ্গে সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

অভিনন্দনবার্তায় গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী কিরিয়াকোস মিটসোটাকিস জানিয়েছেন-বাইডেন প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেবার পর দুই দেশের সম্পর্ক আরও জোরদার হবে এ বিষয়ে আমি নিশ্চিত। কেননা বাইডেন তাঁর দেশের প্রকৃত বন্ধু।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লা আলি খামেনি অবশ্য এতোটা উষ্ণতা প্রকাশ করেন নি।

তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্রকে ব্যঙ্গ করে বলেছেন, ‘নির্বাচনের ফলাফল যাই হোক, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসনে রাজনৈতিক, নাগরিক ও নৈতিক সব পর্যায়ে নিশ্চিত স্খলন খুবই স্পষ্ট।’

কাতারের আমীর শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি টুইটারে লিখেছেন, ‘দেশ দুটির মধ্যে বন্ধুত্ব আরও শক্তিশালী করতে বাইডেনের সঙ্গে কাজ করার অপেক্ষা করছি।’

ন্যাটোর সেক্রেটারি জেনারেল জেনস স্টোলেনবার্গ লিখেছেন, ‘জো বাইডেন আমাদের জোটের শক্তিশালী সমর্থক বলেই জানি। তাঁর সঙ্গে কাজ করার জন্য অপেক্ষা আছি। শক্তিশালী ন্যাটো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপ উভয়ের জন্যই মঙ্গলজনক।’

এ বিষয়ক : জো বাইডেন ও কমলা দেবী হ্যারিসকে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.