মেডিক্যাল শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের নেপথ্যে বন্ড সই : মহাখালীতে বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : মেডিক্যাল শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মূল কারণ বন্ড সই। কারণ শিক্ষার্থীদের ইতোমধ্যে জানানো হয়েছে- তাঁরা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হলে বন্ড সই দিতে হবে। আর পরীক্ষা দেওয়ার সময় তাঁরা যদি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়, এ দায় কর্তৃপক্ষ নেবে না।

মেডিক্যাল কলেজগুলোর পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে আরও জানানো হয়েে- শিক্ষার্থীদের যাঁরা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবে, তাঁরা ছয়মাস পর পরীক্ষা দেবে।

আবার করোনাভাইরাসের কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও শিক্ষার্থীদেরকে বেতন দেওয়ার জন্য প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এ কারণে শিক্ষার্থীরা তাঁদের আন্দোলনে ৫ বছর বা ৬০ মাসের বেশি বেতন না দেওয়ার জন্য আন্দোলন করছে।

পাশাপাশি তাঁদের দাবির মধ্যে রয়েছে- করোনাভাইরাসের মধ্যে কোনও পরীক্ষা নয় এবং সেশনজটমুক্ত শিক্ষাবর্ষ দাবি।

এক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা চাইছে- প্রয়োজনে পরে তাঁরা পরীক্ষা দেবে। আর এখন তাঁরা অনলাইনে পড়াশোনার কার্যক্রম চালিয়ে যেতে চায়।

জানা গেছে- করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে পরীক্ষা না নেওয়াসহ চার দাবিতে মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) রাজধানীর মহাখালীতে সড়ক আটকে বিক্ষোভ দেখিয়েছে মেডিক্যাল শিক্ষার্থীরা।

ফ্লাইওভারের নিচে আমতলী সিগন্যালে বিক্ষোভের কারণে সকাল থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত গুলশান, বিমানবন্দর ও তেজগাঁওয়ের পথে যান চলাচল বন্ধ থাকে; ভোগান্তিতে পড়েন বিভিন্ন পরিবহনের যাত্রীরা।

বিজ্ঞাপন

বনানী থানার ওসি নূরে আজম মিয়া বাংলা কাগজকে বলেন- শিক্ষার্থীরা কিছু দাবি-দাওয়া নিয়ে রাস্তায় নেমেছিল। এ কারণে কিছুক্ষণ যানবাহন চলাচল বাধাগ্রস্ত হয়। দুপুরের পর তাঁরা সড়ক থেকে উঠে গেলে তা স্বাভাবিক হয়।

আন্দোলনকারীদের একজন বাংলা কাগজকে বলেন- ডিসেম্বরে সম্ভাব্য একটি প্রফ (প্রফেশনাল এক্সামিনেশন) আয়োজনের কথা বলা হয়েছে। কিন্তু দ্বিতীয় সংক্রমণের ঢেউয়ের মধ্যে এই পরীক্ষা দেওয়া যাবে কি না; তা নিয়ে পরীক্ষার্থীদের মধ্যে সংশয় আছে।

কর্মসূচি চলার সময় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আন্দোলনকারীদের ডেকে পাঠান। ৬ জন শিক্ষার্থী মহাপরিচালকের সঙ্গে দেখা করতে যান।

একটি বেসরকারি মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী বলেন, ডিজি স্যারের কাছ থেকে আমরা আশানুরূপ কোনও কথা শুনতে পাইনি। দাবি আদায় না হলে কর্মসূচি চলবে।

পরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একজন পরিচালক এসে ৮ নভেম্বরের মধ্যে বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস দিলে কর্মসূচি শেষ করেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনকারীদের দাবিগুলো হলো- করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে প্রফ না নেওয়া, সেশনজট নিরসন করে যথাসময়ে কোর্স সম্পন্ন করার ব্যবস্থা, বেসরকারি মেডিকেল কলেজে ৬০ মাসের বেশি বেতন না নেওয়া এবং করোনাভাইরাস মহামারির সময় পরীক্ষা দিতে গিয়ে আক্রান্ত হলে এর দায়ভার কর্তৃপক্ষকে নেওয়া।

এ বিষয়ক : বেগমগঞ্জে মধ্যযুগীয় বর্বরতা : উত্তাল দেশ, মানববন্ধন-বিক্ষোভ, শাস্তি দাবি

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.