সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১

The Bangla Kagoj

আপনার কাগজ । banglakagoj.net

দশম শ্রেণির রিমি হলেন ভোলার ‘এক ঘণ্টার’ পুলিশ সুপার

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাংলা কাগজ; ভোলা : দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাসনিম আজিজ রিমি হলেন ভোলার এক ঘণ্টার প্রতীকী পুলিশ সুপার (এসপি)।

বুধবার (২৮ অক্টোবর) সকালে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে জেলা পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সারের কাছ থেকে প্রতীকী ওই পুলিশ সুপারের দায়িত্ব নেন রিমি।

এ সময় পুলিশ সুপার তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

প্রতীকী দায়িত্ব নিয়ে ধর্ষকদের প্রকাশ্যে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থার প্রস্তাব দেন রিমি।

তিনি বলেন, ভোলা জেলায় প্রতি ৫ দিনে একটি করে ধর্ষণ মামলা হচ্ছে। আর ৮ ঘণ্টায় একটি করে নারী নির্যাতনের মামলা হচ্ছে।

‘নারীর প্রতি সহিংসতা দিনদিন বেড়ে চলছে। নারী ও কিশোরী নির্যাতনের প্রেক্ষাপটে আমি একজন মেয়ে হিসেবে এ দেশের লাখ লাখ কিশোরীর মতো স্বপ্ন দেখি- একটি সুস্থ ও নিরাপদ পরিবেশ এবং সুন্দর সমাজের।’

‘যেখানে হাজারও স্বপ্ন বুকে নিয়ে কোনও কিশোরি কিংবা কোনও শিশুকে ধর্ষণের শিকার হতে হবে না। যেখানে ধর্ষণের শিকার হয়ে কোনও মেয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নেবে না।’

‘রাষ্ট্র প্রতিটি নারী ও শিশুর সুরক্ষার ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। তাই আমি আশা করি- ধর্ষিত কিশোরিদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনা এবং ধর্ষকদের প্রকাশ্যে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক।’

এ সময় একটি ধর্ষণমুক্ত, ইভটিজিংমুক্ত নারী ও শিশুবান্ধব ভোলা জেলা গড়ে তুলতে সকলকে এগিয়ে আশার আহ্বান জানান রিমি।

প্রতীকী এই পুলিশ সুপার বলেন- ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে দাঁড়িয়ে নারী ও কিশোরি তরুণীরা যে সমস্যাগুলোর সম্মুখিন হচ্ছেন, এর মধ্যে অন্যতম অনলাইনভিত্তিক সাইবার বুলেটিং। এর মাধ্যমে নারীরা চরম নিরাপত্তাহীনতার শিকার হচ্ছে। এখনও বাংলাদেশের অধিকাংশ কিশোরি জানে না, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সর্ম্পকে।

বিজ্ঞাপন

‘আমি চাই ভোলা জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সাইবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণে একটি টিম থাকবে। যার মাধ্যমে কিশোরিরা সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে ও সকলকে সচেতন করে গড়ে তুলবে।’

সর্বোপরি নারী বা পুরুষ নয়; একজন মানুষ হিসেবে মেয়েদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

এ সময় তিনি নারী নির্যাতন, কন্যা শিশুবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি, নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধ, ইভটিজিং, কিশোর গ্যাং, বাল্যবিয়ে রোধ ও সাইবার ক্রাইম নিয়ন্ত্রণসহ সামাজিক অপরাধগুলো রোধে আরও সোচ্চার ভূমিকা পালনে পুলিশের প্রতি অনুরোধ জানান।

পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার বলেন- নারীদের বাদ দিয়ে কোনও সমাজের উন্নয়ন সম্ভব নয়। নারীদের নিয়েই আমাদের সমাজকে এগিয়ে নিতে হবে। নারীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

‘অসীম ক্ষমতার অধিকারী নারী। যেসব রাষ্ট্র নারীর ক্ষমতায়ন দিয়েছে, তাঁরাই এগিয়ে গেছে। তাই নারীর সুরক্ষা ও ক্ষমতায়ন না দিলে আমাদের উন্নয়ন টেকসই হবে না।’

এ সময় তিনি আরও বলেন- সমাজ ব্যবস্থাকে ভালো রাখতে হলে পরিবারকে সবার আগে এগিয়ে আসতে হবে। পরিবার থেকেই সমাজ ব্যবস্থার পরিবর্তনের জন্য ভূমিকা রাখতে হবে। নারী-পুরুষের সমতা অর্জন করতে পারলেই আমাদের টেকসই উন্নয়ন সম্ভব হবে বলেও মত দেন তিনি।

এ সময় এনসিটিএফ-এর জেলা সমন্বয়কারি সাংবাদিক আদিল হোসেন তপুর সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন ভোলা জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা আকতার হোসেন, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা চামেলি বেগম, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড-এর আহ্বায়ক সাংবাদিক হামিদুর রহমান হাসিব, ভোলা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক শারমিন জাহান শ্যামলী, ভোলা সদর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক আবিদুল আলম, ভোলা জেলা এনসিটিএফ-এর সভাপতি জান্নাতুল ফেরদাউস মিম, ভোলা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইসরাত জাহান।

এ সময় তাসনিম আজিজ রিমির অভিভাবক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী তারেক আব্দুল আজিজ ও মা শিক্ষক মরিয়ম বেগম উপস্থিত ছিলেন।

প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল এর ‘গার্লস টেকওভার’ কর্মসূচির আওতায় ন্যাশনাল চিলড্রেন টাস্কফোর্সের (এনসিটিএফ) সহযোগিতায় নারী নেতৃত্ব উদ্বুদ্ধকরণ কর্মসূচির আওতায় ওই প্রতীকী দায়িত্ব প্রদানের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সংস্থাটি মনে করছে- এর মাধ্যমে একজন কিশোরি, কন্যা শিশু অথবা যুবা নারীকে নেতৃত্ব প্রদানকারীর ভূমিকা পালন করতে সহায়তা করা হয়; যাতে করে তাঁর আত্মবিশ্বাস বাড়ে এবং নিজের স্বপ্ন পূরণে সে অঙ্গীকারাবদ্ধ হয়।

অনুষ্ঠানে তাসনিম আজিজ রিমিকে দায়িত্ব শেষে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার।

এ বিষয়ক : ‘১ ঘণ্টার’ উপজেলা চেয়ারম্যান হলেন পঞ্চগড়ের এক স্কুল ছাত্রী

Facebook Comments Box
Contact us

বাংলা কাগজ এ আপনাকে স্বাগতম।

X
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
Facebook91m
Twitter38m
LinkedIn4m
LinkedIn
Share