মহাসপ্তমী : বৃষ্টিতেই কলাবউ স্নান, নবপত্রিকা স্থাপিত মণ্ডপে

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) দুপুর পর্যন্ত ছিল দুর্গাপূজোর মহাসপ্তমী।

এই মহাসপ্তমীতে মণ্ডপে মণ্ডপে বসানো হয়েছে কলা বউ। স্নানপর্ব শেষে স্থাপিত হয়েছে নবপত্রিকা।

নবপত্রিকা বাংলার দুর্গাপূজার একটি বিশিষ্ট অঙ্গ।

নবপত্রিকা শব্দটির আক্ষরিক অর্থ নয়টি গাছের পাতা। তবে বাস্তবে নবপত্রিকা নয়টি পাতা নয়, নয়টি উদ্ভিদ।

রম্ভা কচ্চী হরিদ্রাচ জয়ন্তী বিল্ব দাড়িমৌ। অশোক মানকশ্চৈব ধান্যঞ্চ নবপত্রিকা।

অর্থাৎ কদলী বা রম্ভা (কলা), কচু, হরিদ্রা (হলুদ), জয়ন্তী, বিল্ব (বেল), দাড়িম্ব (ডালিম), অশোক, মানকচু ও ধান।

শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) মহাসপ্তমীর পূজোয় একটি সপত্র কলাগাছের সঙ্গে অপর আটটি সমূল সপত্র উদ্ভিদ একত্র করে একজোড়া বেলসহ শ্বেত অপরাজিতা লতা দিয়ে বেঁধে লালপাড় সাদা শাড়ি জড়িয়ে ঘোমটা দেওয়া বৌয়ের আকার দেওয়া হয়েছে; স্ত্রীরূপের জন্য দু’টি বেল দিয়ে করা হয়েছে স্তনযুগল।

তারপর সিঁদুর দিয়ে সপরিবার দেবীপ্রতিমার ডান দিকে দাঁড় করিয়ে পূজা করা হয়েছে।

প্রচলিত ভাষায় নবপত্রিকার নাম কলাবউ।

বিজ্ঞাপন

এই রীতি বাংলার কৃষিভিত্তিক সমাজের শিকড়ের দিকে ইঙ্গিত করে।

শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) সপ্তমীর দিনে একটি ছোট কলাগাছের সঙ্গে আরও ৮টি গাছের পাতা বেঁধে তা স্নান করানো হয়েছে।

সকালে নবপত্রিকাকে স্নানের জন্য নদী বা জলাশয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এরপর লাল পাড় সাদা শাড়িতে মুড়িয়ে সেটিকে গণেশের পাশে প্রতিস্থাপিত করা হয়েছে।

বারবেলানুরধে সকাল ৮টা ৩০ মিনিট ২৮ সেকেন্ড মধ্যে শ্রীশ্রী শারদীয়া দুর্গাদেবীর নবপত্রিকা প্রবেশ, স্থাপন, সপ্তম্যাদিকল্পারাম্ভ ও সপ্তমী বিহিত পূজা প্রশস্তা।

সপ্তমী তিথি আরম্ভ : বাংলার ৫ কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার। ইংরেজির ২২ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, থার্সডে। সময় : দুপুর ১টা ১১ মিনিট ৫৯ সেকেন্ড থেকে।

সপ্তমী তিথি শেষ : বাংলার ৬ কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, শুক্রবার। ইংরেজির ২৩ অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ফ্রাইডে। সকাল ১১টা ৫৬ মিনিট ৬ সেকেন্ড পর্যন্ত।

এ বিষয়ক : রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা : আজ শুরু দুর্গাপূজা

কামাল : দেশের মানুষ সন্ত্রাসীদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয় না

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.