কবরস্থানে নড়েচড়ে ওঠা সেই শিশু মারা গেছে

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মৃত ঘোষণার পর দাফনের সময় নড়েচড়ে ওঠা সেই নবজাতককে বাঁচানো যায় নি।

কবরস্থান থেকে হাসপাতালে ফিরিয়ে আনার পর চিকিৎসকদের ছয় দিনের প্রচেষ্টাকে ব্যর্থ করে দিয়ে বুধবার (২১ অক্টোবর) মারা গেছে শিশুটি। রাত সাড়ে ১১টায় মারা যায় ওই শিশু।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নবজাতক নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (এনআইসিইউ) শিশুটির মৃত্যু হয়।

নবজাতকটির বাবা ইয়াছিন এবং ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বাংলা কাগজকে শিশুটির মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার (২১ অক্টোবর) রাতে বাচ্চু মিয়া বলেন- শিশুটির শারীরিক অবস্থা বরাবরই আশঙ্কাজনক ছিল বলে জানিয়েছিলেন চিকিৎসকরা।

‘রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকেরা।’

নবজাতকটির বাবা ইয়াছিন বাংলা কাগজকে বলেন- ডাক্তারেরা গত কয়েকদিনে অনেক চেষ্টা করেছেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাঁকে বাঁচানো গেল না।

‘ডাক্তাররা বলে দিয়েছেন, ও মারা গেছে।’

ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন ও হাসপাতালের নবজাতক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. মনীষা ব্যানার্জী বরাবরই জানিয়ে আসছিলেন, অত্যন্ত অপরিণত অবস্থায় শিশুটি জন্ম নিয়েছে। তাঁকে নিবিড় পরিচর্যায় রাখা হলেও তাঁর শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত আশঙ্কাজনক।

বিজ্ঞাপন

এর আগে, গত বুধবার (১৪ অক্টোবর) ৬ মাস ১৬ দিনের অন্তঃস্বত্ত্বা স্ত্রী শাহিনুর বেগমকে ঢামেক হাসপাতালের গাইনি বিভাগে ভর্তি করেন ইয়াছিন।

২১২ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তির পর সেখানকার চিকিৎসকরা তাঁর স্ত্রীকে দেখেন এবং জানান তাঁর রক্তচাপ অনেক বেশি।

‘বাচ্চাটি ডেলিভারি না করালে তার প্রেশার কমবে না।’

ওই অবস্থায় তাঁকে (শাহিনুর বেগমকে) জরুরিভিত্তিতে ডেলিভারি করানো হয়। তবে হৃদস্পন্দন ‘না থাকায়’ শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

শুক্রবার সকালে শিশুটিকে নিয়ে আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করাতে গেলে প্রয়োজনীয় টাকা না থাকায় ইয়াছিন তাঁকে রায়েরবাগ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফন করতে নিয়ে যান।

দাফনের আগে কবর খোঁড়ার শেষ পর্যায়ে হঠাৎ কান্নার শব্দ পেয়ে সংশ্লিষ্টরা দেখেন- শিশুটি নড়াচড়া করছে। পরে তাঁকে ফের ঢামেক হাসপাতালে ফিরিয়ে আনা হয়।

এ ঘটনায় শুক্রবার হাসপাতালের নবজাতক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. মনীষা ব্যানার্জীকে প্রধান করে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

এ বিষয়ক : দাফনের ঠিক আগমুহূর্তে কেঁদে উঠলো শিশুটি

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.