ডিসেম্বর ৯, ২০২১

The Bangla Kagoj

বিশ্বের সব দেশে, সব ভাষায়, সব সময় । বাংলা কাগজ । আপনার কাগজ । banglakagoj.net (আমাদের কোনও জাতীয় পত্রিকা নেই)।

ঢাবি ছাত্রীকে হুমকি দেওয়ার প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ

Exif_JPEG_420

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূরের দুই সহযোগীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলাকারী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ছাত্রীকে বিষয়টি চেপে না গেলে চরিত্র হননের হুমকি দেওয়ার প্রমাণ পাওয়ার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

এই মামলায় গ্রেপ্তার নূরের অপর দুই সহযোগি সাইফুল ইসলাম ও নাজমুল হুদাকে দুই দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন গোয়েন্দা পুলিশের লালবাগ বিভাগের কর্মকর্তারা। রিমান্ড শেষে বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) তাদের আদালতে হাজির করা হলে কারাগারে পাঠিয়েছেন বিচারক।

দুই আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদে কী তথ্য পাওয়া গেল- জানতে চাইলে ডিবির লালবাগ বিভাগের উপ-কমিশনার রাজিব আল মাসউদ বাংলা কাগজকে বলেন- গ্রেপ্তারকৃত সাইফুল ও নাজমুলের কাছ থেকে বেশকিছু তথ্য পাওয়া গেছে। আর পুলিশ তদন্ত করেও কিছু তথ্য বের করেছে। মামুনের সঙ্গে ওই শিক্ষার্থীর সম্পর্কের বিষয়টি যে তাদেরকে জানিয়েছে, তার সত্যতা পাওয়া গেছে।

‘মূলত নির্যাতিত ওই শিক্ষার্থী তাদের কাছে বিচার দিয়েছিল। কিন্তু বিষয়টিতে তারা গুরুত্ব দেয় নি।’

নূরদের সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন এবং যুগ্ম আহ্বায়ক নাজমুল হাসান সোহাগ দুই দফায় তাকে ধর্ষণ করেছে বলে মামলায় অভিযোগ করেন ওই ছাত্রী। পরে এর প্রতিকার চাইতে নূরসহ তাদের অন্য সহকর্মীদের কাছে গেলে তাকে হুমকি দেওয়া হয় বলে মামলায় বলেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

সোস্যাল মিডিয়ায় চরিত্র হননের হুমকির ওই অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে বলে তদন্ত সংশ্লিষ্ট আরেকজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

তিনি বাংলা কাগজকে বলেন- বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে ফেইসবুকে তাদের ১ দশমিক ২ মিলিয়ন সদস্য রয়েছে এবং একটা লাইভ করলে তার সব মান-সম্মান চলে যাবে বলে মেয়েটিকে হুমকি দেওয়া হয়।

‘এক পর্যায়ে মেয়েটির বিরুদ্ধে অনলাইনে কুৎসা রটানোর জন্য গ্রেপ্তার সাইফুল, নাজমুল হুদা এবং মামলার আরেক আসামি আবদুল্লাহিল বাকিকে কাজে লাগানো হয়।’

মেয়েটি যখন প্রতিকার চেয়ে ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছিলেন, সেই সময় একটি রেস্তোরাঁ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে আসামিদের কয়েকজনের সঙ্গে তার দেখা হয় বলে জানান তদন্ত সংশ্লিষ্ট আরেকজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা।

তিনি বলেন, দুইজনের কাছ থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। কোনও এক রেস্টুরেন্টে এবং হলে তাদের কথা হয়েছে, সেগুলোর সিসি ক্যামেরার ফুটেজ যোগাড় করার চেষ্টা চলছে। এছাড়া কোন কোন ডিভাইস থেকে তাদের মধ্যে কথা বা চ্যাট হয়েছে সেসব তথ্যও সংগ্রহের কাজ করা হচ্ছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজের স্নাতকোত্তরের ওই ছাত্রী ছাত্র অধিকার পরিষদের দুই নেতার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে মামলা করার পর তাকে ষড়যন্ত্রমূলক আখ্যা দিয়ে বিক্ষোভ করেছিল নূর-রাশেদদের নেতৃত্বাধীন সংগঠনটি।

এ বিষয়ক : নূরের বিরুদ্ধে এবার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা : পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ

Facebook Comments Box
Contact us

বাংলা কাগজ এ আপনাকে স্বাগতম।

X
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
Facebook91m
Twitter38m
LinkedIn4m
LinkedIn
Share