বসিলায় নিজ বাড়িতে খুন, স্ত্রী-সন্তান পলাতক

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : রাজধানীর বসিলায় মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) বিকেলে লাল মিয়া (৫৫) নামের এক ব্যক্তি নিজ বাড়িতে খুন হয়েছেন। তাঁর স্ত্রী ও সন্তানদের বিরুদ্ধে এ হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনার পর থেকে ওই ব্যক্তির স্ত্রী ও তাঁর তিন সন্তান পলাতক। পুলিশের ধারণা- সম্পত্তির দখল নিতেই এ হত্যাকাণ্ড।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্র জানায়- বিকেল সাড়ে চারটার দিকে স্বজনেরা বসিলার নিজ বাড়ি থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত লাল মিয়ার ছোট ভাই শহর আলী হাসপাতালে সাংবাদিকদের বলেন- দক্ষিণ বসিলা ব্রিজের পাশেই লাল মিয়ার তিন তলা বাড়ি। লাল মিয়া থাকতেন দোতলায়।

পারিবারিক কলহের জেরে সাত-আট মাস ধরে স্ত্রী আরজুদা বেগম বাড়ির তৃতীয় তলায় আলাদা থাকছেন। তাঁদের তিন ছেলে ওই বাড়িতে আলাদা থাকেন। তিন ছেলে মায়ের পক্ষেই ছিলেন। ওই বাড়ি ছাড়াও আশপাশে বাড়ি আছে লাল মিয়ার। সে বাড়িগুলো থেকে ছেলেরা জোরপূর্বক ভাড়া তুলতেন, কিন্তু বাবাকে দিতেন না।

বিজ্ঞাপন

শহর আলী অভিযোগ করেন- লাল মিয়ার বাড়ির পাশে তাঁর ও তাঁর বড় ভাই আবুল বাসারের বাড়ি। কিছুদিন ধরে স্ত্রী ও সন্তানেরা লাল মিয়ার কাছ থেকে সম্পত্তি লিখে নেওয়ার পাঁয়তারা করছিলেন।

মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) বেলা তিনটার পর এসব নিয়ে ছেলেদের সঙ্গে লাল মিয়ার কথা–কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে গোঙানির শব্দে তিনি ছুটে গিয়ে লাল মিয়াকে দোতলায় রক্তাক্ত ও গলায় গামছা প্যাঁচানো অবস্থায় পান। তাঁর পেটে, বুকে ও পিঠে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন ছিল। তিন ছেলে জহিরুল ইসলাম, মেজ ছেলে সাজ্জাদুল ইসলাম ও ছোট ছেলে মিলন এবং স্ত্রী আরজুদা পালিয়ে যান। ঘটনার সময় স্ত্রী আরজুদা দরজায় দাঁড়িয়ে পাহারা দিচ্ছিলেন বলে আশপাশের লোকজন তাঁকে বলেছেন। লাল মিয়াকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে রায়েরবাজার শিকদার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে তাঁকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

হাজারীবাগ-ধানমন্ডি অঞ্চলের অতিরিক্ত উপকমিশনার আবদুল্লাহ আল কাফি মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সন্ধ্যায় বাংলা কাগজকে বলেন- লাল মিয়া আরেকটি বিয়ে করবেন বলে ভাবছিলেন।

তাই তিনি বাড়ির পাশেই একটি ফ্ল্যাট কিনেছিলেন। ওই ফ্ল্যাটের দখল নিতে তাঁর সন্তানেরা মরিয়া হয়ে ওঠেন। স্ত্রী ও সন্তানেরা গ্রেপ্তার হলে হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত কারণ জানা যাবে। তবে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, সম্পত্তির দখল নিতেই লাল মিয়াকে শ্বাসরোধের পর ছুরিকাঘাতে হত্যা করেন তাঁর স্ত্রী ও সন্তানেরা।

এ বিষয়ক : বিজয় টিভির সাংবাদিককে ছুরিকাঘাত ও কুপিয়ে খুন

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.