বিশ্ব ডাক দিবস আজ

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : বৈদিক গ্রন্থ অথর্ববেদে প্রথম ডাক যোগাযোগের তথ্য লিপিবদ্ধ হয়। প্রাচীনকালে কবুতর বা দূতের মাধ্যমে চিঠি আদান-প্রদান করা হতো। শেরশাহ (শাসনামল ১৫৩৮-১৫৪৫) ঘোড়ার ডাকের প্রচলন করেন। তিনি এক হাজার ৭০০টি ডাকঘর নির্মাণ এবং ঘোড়াসহ প্রায় তিন হাজার ৪০০ বার্তাবাহক নিযুক্ত করেন।

সেই যুগ শেষে এখন ইন্টারনেটের সময়। ফলে এ যুগে ডাক বিভাগের গুরুত্ব যে অনেক কমে এসেছে, তা বলাই বাহুল্য। তারপরও ব্যবসা-বাণিজ্যে ডাক ব্যবস্থা এখনও অপরিহার্য।

আজ ৯ অক্টোবর। প্রতিবছর এদিনে বিশ্ব ডাক দিবস পালিত হয়। ইউরোপের ২২টি দেশের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে ১৮৭৪ সালের এদিনে সুইজারল্যান্ডের বার্ন শহরে গঠিত হয় ‘জেনারেল পোস্টাল ইউনিয়ন’। এর লক্ষ্য ছিল বিশ্বের প্রতিটি দেশের মধ্যে ডাক আদান-প্রদানকে অধিকতর সহজ ও সমৃদ্ধশালী করার মধ্য দিয়ে বিশ্বজনীন পারস্পরিক যোগাযোগকে সুসংহত করা। আত্মীয়-স্বজন, প্রিয়জনের চিঠির জন্য এখন আর ডাক পিয়নের অপেক্ষায় থাকতে হয় না। আধুনিক প্রযুক্তির অগ্রসরতায় গুরুত্ব হারাতে বসেছে পোস্ট অফিস। তাই অযত্ন-অবহেলায় নষ্ট হয়ে যাচ্ছে ডাকবাক্স, কদর নেই ডাক পিয়নেরও। এক সময় মানুষ অপেক্ষায় থাকতো ডাক পিয়নের গলার আওয়াজের। এই বুঝি এলো প্রিয়জনের চিঠি। এখন আর সে অবস্থা নেই। ডাক বিভাগও যেন ক্লান্ত। নেই কোনও প্রচার-প্রচারণাও।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ক : আত্রাইয়ে জাতীয় জন্ম নিবন্ধন দিবস পালিত

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী : জাতীয় কন্যাশিশু দিবস মঙ্গলবার

নওগাঁ : বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহে ভার্চুয়াল আলোচনা

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.