রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ও বন্ধ হচ্ছে ফোরজি

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ ও নিজস্ব সংবাদদাতা, উখিয়া, কক্সবাজার : রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বুধবার (৭ অক্টোবর) এসব পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়। আর এসব পুলিশ সদস্যের সঙ্গে রয়েছেন সেনাবাহিনী, র‌্যাব, পুলিশ ও এপিবিএন সদস্যরাও।

এর সঙ্গে বিকেলে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেছেন চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন (পিপিএম)।

পাশাপাশি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ফোরজি সেবা বন্ধ করা হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। বুধবার (৭ অক্টোবর) সচিবালয়ে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

মোমেন আরও জানান- রোহিঙ্গা ক্যাম্পের চারিদিকে কাটাতারের বেড়াও দেওয়া হবে।

উল্লেখ করা যেতে পারে- অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করার জন্য কিছু রোহিঙ্গা পাহাড়ে অবস্থান করে প্রশিক্ষণ নিচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। অবশ্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে এসব রোহিঙ্গা ধরাও পড়ছে। পাশপাশি রোহিঙ্গারা নিজেদের মধ্যে কোন্দলেও নিহত হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

জানা গেছে- অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির পাঁয়তারায় কিছু রোহিঙ্গা গহীন পাহাড়ে অবস্থান করছেন। অবশ্য তাদের গ্রেপ্তারেও সমর্থ হচ্ছেন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। এরই অংশ হিসেবে মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) ভোরে টেকনাফের চাকমারকূল ক্যাম্প সংলগ্ন গহীন পাহাড়ে অভিযান চালিয়ে নয় রোহিঙ্গাকে অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেপ্তার করেছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

এদিকে, নিজেদের মধ্যেই অন্তঃকোন্দলেও জড়িয়ে পড়ছে রোহিঙ্গা। এক্ষেত্রে তারা মারাও যাচ্ছে।

এরই অংশ হিসেবে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দু’দল রোহিঙ্গার সংঘর্ষে তিনদিনে নিহত হয়েছেন সাতজন। এসব ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১৬ জন। গেল রবি (৪ অক্টোবর), সোম (৫ অক্টোবর) ও মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) এসব ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ক : অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায় রোহিঙ্গা! তিনদিনে নিহত ৭

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.