রাত ৮টায় মাঠে গড়াচ্ছে আইপিএল

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : অবশেষে আজকেই (শনিবার- ১৯ সেপ্টেম্বর) মাঠে গড়াচ্ছে আইপিএল (ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ)। রাত ৮টায় শুরু হচ্ছে টুর্নামেন্টের ১৩তম আসর। শুরুর দিনেই মাঠে নামছে দুই হেভিওয়েট দল- চেন্নাই সুপার কিংস ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। যা সরাসরি দেখাবে স্টার স্পোর্টস।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যে আইপিএলের এবারের আসর নিয়ে বেশ শঙ্কা ছিল। শেষ পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্থগিত হওয়ায় আয়োজিত হচ্ছে আইপিএল। তবে ভারতে করোনার প্রকোপ বেশি বলে সংযুক্ত আরব আমিরাতে হচ্ছে টুর্নামেন্টটির এবারের আসর।

মরুর দেশে তিন ভেন্যু শারজাহ, আবুধাবি ও দুবাইয়ে হবে আইপিএলের এবারের আসর। দুবাই ও আবুধাবিতে ২১টি করে ম্যাচ হবে। শারজাহ আয়োজন করবে ১৪টি ম্যাচ। করোনাভাইরাসের কারণে জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে খেলতে হবে ক্রিকেটারদের। মাঠে থাকছে না দর্শক। সবকিছুর সঙ্গে মানিয়ে নিয়েই দুবাইতে ফিরছে ক্রিকেট।

করোনাভাইরাসের কারণে লিগটির ইতিহাসে প্রথমবারের মতো থাকছে না কোনও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানও। আর যেহেতু দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে খেলা হবে, ফলে থাকছেন না চিয়ারগার্লরাও।

শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি নিয়ে বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী ভারতীয় একটি দৈনিককে বলেন- ‘চ্যালেঞ্জ তো মানুষের জীবনে থাকেই। কিন্তু এটা অন্য রকম এক চ্যালেঞ্জ। কোভিডের কারণে এবারের আইপিএল একদম অন্য রকম। মনে হচ্ছে, সবকিছু ঠিক আছে। এখন অপেক্ষা ক্রিকেট শুরু হওয়ার।’

বিসিসিআই সভাপতির চোখে ফেভারিট দল নিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন- ‘ফেভারিট বাছাই করা কঠিন। দারুণ একটা ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে টুর্নামেন্ট, এটা বলে দিতে পারি। সবচেয়ে বেশি আইপিএল তো এ দুটো টিমই জিতেছে।’

বিজ্ঞাপন

দুই মাস ধরে কার্যত বিনিদ্র রজনী কাটছে বোর্ড সভাপতির। কখনও আইপিএলের চীনের স্পন্সর বিদায় নিচ্ছে, কখনও দুবাই থেকে ফোন আসছে চেন্নাই সুপার কিংসে ১৩ জন করোনাভাইরাস পজিটিভ। ইংল্যান্ডে মাঠের মধ্যে হোটেল আছে। সেখানে দুটি দলের খেলা হচ্ছে। কিন্তু আইপিএলে আটটা দলের প্রায় তিনশ ক্রিকেটারকে নিয়ে বিদেশে জৈব সুরক্ষা বলয় তৈরি করতে হয়েছে। সামান্য ভুল মানেই সব প্রস্তুতি ভেস্তে যাবে।

প্রশাসক হিসেবে এই আইপিএল সৌরভের জীবনের সবচেয়ে বড় পরীক্ষা কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন- বর্তমান পরিস্থিতিতে অবশ্যই বড় চ্যালেঞ্জ। কোভিডের জন্য আমাদের সবকিছু ঢেলে সাজাতে হয়েছে। পুরো সিস্টেম তৈরি করতে হয়েছে এখানে (আরব আমিরাতে)। স্বাস্থ্য সুরক্ষার ব্যাপারটিকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হয়েছে। সারাদেশই হয়তো আইপিএল শুরুর অপেক্ষায়। আমি বলব, এটা ৫৩ দিনের লম্বা টুর্নামেন্ট। একদিনের নয়, দীর্ঘমেয়াদি পরীক্ষা সবার। শুধু টুর্নামেন্টটাই করতে চাই আমরা। কোনও অনুষ্ঠান থাকবে না।

কতটা আলাদা হবে এবারের আইপিএল? জানতে চাওয়ায় সৌরভের জবাব- ‘কোভিডের জন্য পরিস্থিতির দিক থেকে আলাদা তো বটেই। ভারতে আইপিএল নিয়ে উন্মাদনা অবিশ্বাস্য। অনেক মানুষ দেখতে আসেন। আটটা শহরের স্টেডিয়ামে প্রতিটি ম্যাচে লোক উপচে পড়ে। সেই গমগম করা ব্যাপারটা এবার হয়তো মাঠে দেখা যাবে না। একে তো ভারতে টুর্নামেন্ট হচ্ছে না, তার ওপরে এখানেও দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে খেলা হবে।

এ বিষয়ক : কঠিন শর্তের কারণে শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে না বাংলাদেশ

ওয়েফা নেশনস লীগ : ফ্রান্সের কাছে ৪-২ গোলে হারল ক্রোয়েশিয়া

২০২০-২১ মৌসুম বার্সাতেই থাকছি, বললেন মেসি

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.