সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১

The Bangla Kagoj

আপনার কাগজ । banglakagoj.net

মসজিদ কমিটিকে দুষছে তিতাস, সবাইকে দায়ী করছে জেলা প্রশাসন

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : নারায়ণগঞ্জের তল্লায় মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় মসজিদ কমিটিকে দুষছে তিতাসের তদন্ত কমিটি। এ ঘটনায় নিজেদের কর্মীদের সরাসরি কোনও দোষ নেই বলে দাবি করেছেন কমিটির প্রধান ও তিতাস গ্যাসের মহাব্যবস্থাপক আব্দুল ওয়াহাব। বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জ্বালানি মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল ওয়াহাব বলেন- গ্যাসলাইনে ছিদ্রের কথা মসজিদ কমিটি সময়মতো জানালে এ পরিস্থিতি হতো না।

পাশাপাশি একই ঘটনায় একইদিন (বৃহস্পতিবার- ১৭ সেপ্টেম্বর) তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয় জেলা প্রশাসনের গঠিত তদন্ত কমিটি। ওই প্রতিবেদনে মসজিদ নির্মাণ, গ্যাস লিকেজ ও অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগসহ বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরা হলেও কোনও প্রতিষ্ঠানকে এককভাবে দায়ী করা হয় নি।

বিজ্ঞাপন

বিকেলে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে তদন্ত কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক খাদিজা তাহেরা ববির নেতৃত্বে কমিটির পাঁচ সদস্য উপস্থিত হয়ে জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিনের হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে এ তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন।

আর প্রায় দুই সপ্তাহের তদন্ত শেষে নারায়ণগঞ্জের মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন জ্বালানি মন্ত্রণালয়ে জমা দেয় তিতাস গ্যাস। প্রতিবেদনে বিস্ফোরণের জন্য দুই জন গ্রাহক ও মসজিদ কমিটির ওপর দায় চাপিয়েছে তিতাস।

আব্দুল ওয়াহাব জানান- গ্যাস লাইন ঠিক করার জন্য তিতাস কর্মকর্তাদের ঘুষ চাওয়ার সত্যতা মেলেনি তদন্তে। এছাড়াও দুর্ঘটনার জন্য নিজেদের কর্মীদের সরাসরি কোনও দায় নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

আব্দুল ওয়াহাব আরও জানান- মসজিদের নির্মাণে ত্রুটি থাকার কারণেই মাটির নিচ থেকে গ্যাস বের হয়ে তা এসির চেম্বারে জমা হয়। গ্যাসলাইন ঠিক করার জন্য তিতাস কর্মকর্তাদের টাকা চাওয়ার অভিযোগ নাকচ করে তিনি বলেন, গ্যাসলাইনের ছিদ্র সম্পর্কে কোনো অভিযোগই পাওয়া যায়নি। তিনি অভিযোগ করেন, লাইনের লিকেজ সম্পর্কে জানার পরও মসজিদে এসি চালিয়ে নামাজ পড়া হয়েছে।

গত ৪ সেপ্টেম্বর রাতে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার তল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ সময় মসজিদের ভেতরে দগ্ধ অবস্থায় ৩৭ জনকে উদ্ধার করে ঢাকার শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় এদের মধ্যে ৩১ জন মারা গেছেন। বাকি ৫ জন এখনও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

দুর্ঘটনার পর দিন তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক আব্দুল ওহাবের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। এ দুর্ঘটনায় গত ৭ সেপ্টেম্বর তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন ও ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের ফতুল্লা অফিসের আট কর্মকর্তা-কর্মচারীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

এ বিষয়ক : প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে গ্যাস লিকেজেই মসজিদে বিস্ফোরণ : সিআইডি

Facebook Comments Box
Contact us

বাংলা কাগজ এ আপনাকে স্বাগতম।

X
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
Facebook91m
Twitter38m
LinkedIn4m
LinkedIn
Share