সীমান্তে মিয়ানমার বাহিনীর ধৃষ্টতা!

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : রোহিঙ্গা সংকট সমাধান ও জাতিগত নিধনযজ্ঞের শিকার জনগোষ্ঠীর বিচার প্রাপ্তির লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক আদালতের আইনজীবীরা যখন অন্য কোনও দেশ বিশেষ করে বাংলাদেশে আদালত স্থানান্তরের নজিরবিহীন আবেদন করেছেন, তখন সীমান্তে সেনা সমাবেশের মাধ্যমে অপতৎপরতা শুরু করেছে মিয়ানমার।

শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) হাজার খানেক বর্মী সেনা টেকনাফ সীমান্তে ৩টি পয়েন্টে টহল দিয়ে উত্তেজনাপূর্ণ রাখাইনে প্রবেশ করে। সেনাদের সন্দেহজনক ওই মুভমেন্টকে শান্ত সীমান্ত অশান্ত করা এবং রাখাইন অস্থিতিশীল করার পাঁয়তারা হিসাবে দেখছে ঢাকা। বিনা উস্কানিতে এভাবে সীমান্তের কাছে নতুন করে সেনাসমাবেশের প্রতিবাদে ঢাকায় মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত অং কিউ মোয়েকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ডেকে পাঠানো হয়।

রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত অং কিউ মোয়েকে ডেকে নিয়ে মৌখিক প্রতিবাদ জানানো ছাড়াও তার হাতে একটি প্রটেস্ট নোট দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ক : রোহিঙ্গা হত্যার স্বীকারোক্তি দেওয়া ‘মিয়ানমারের ২ সেনা’ হেগে

বন্ধের পরও রোহিঙ্গা ক্যাম্পে থ্রিজি-ফোরজি কেন?

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.