ইউএনও ওয়াহিদার ওপর হামলা : দু’জনের পর গ্রেপ্তার আরও দুই

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউওনও) ওয়াহিদা খানম ও তাঁর বাবা ওমর আলী শেখের ওপর হামলার ঘটনায় করা মামলায় যুবলীগ নেতাসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : জ্ঞান ফিরেছে ওয়াহিদার

ওয়াহিদার মাথার খুলি ভেতরে ঢুকে গেছে, সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ

ঢাকায় আনা হলো গুরুতর আহত ইউএনও ওয়াহিদাকে

শুক্রবার (৪ সেপ্টম্বর) দুপুরে ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিরুল ইসলাম বাংলা কাগজকে এ তথ‌্য নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেপ্তার চারজন হলেন- সিংড়া ইউনিয়নের যুবলীগের সভাপতি মাসুদ, যুবলীগ সদস‌্য আসাদুল ইসলাম, ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর হোসেন ও নৈশপ্রহরী নাহিদ হোসেন পালাশ।

বিজ্ঞাপন

ওসি জানান, আজ (শুক্রবার- ৪ সেপ্টেম্বর) ভোর সাড়ে ৪টায় র‌্যাব ও পুলিশ যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে হিলির কালীগঞ্জ এলাকা থেকে যুবলীগের সদস‌্য আসাদুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে। তার বাড়ি ঘোড়াঘাট উপজেলার সাগরপুর গ্রাম। বাবার নাম আমজাদ হোসেন।

তিনি আরও জানান, ঘোড়াঘাট উপজেলার রানিগঞ্জে অভিযান চালিয়ে নিজ বাসা থেকে যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীরকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। জাহাঙ্গীর হোসেন উপজেলার ওসমানপুর সাগরপাড়া এলাকার আবুল কালামের ছেলে।

তিনি আরও জানান, গতকাল (বৃহস্পতিবার- ৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ‌্যায় যুবলীগ নেতা সিংড়া ইউনিয়নের যুবলীগের সভাপতি মাসুদ ও নৈশপ্রহরী নাহিদ হোসেন পালাশকে জিজ্ঞাসাবাদের জন‌্য আটক করা হয়। আজ (শুক্রবার- ৪ সেপ্টেম্বর) তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) ঘোড়াঘাট থানায় ওয়াহিদা খানমের বড় ভাই শেখ ফরিদ বাদী হয়ে হত‌্যা চেষ্টার মামলা করেন।

প্রসঙ্গত- বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত আনুমানিক আড়াইটায় ওয়াহিদা খানমের সরকারি বাসভবনের বাথরুমের জানালা (ভেন্টিলেটরের চেয়ে একটু বড়) ভেঙ্গে তাঁর ওপর হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। ওই সময় ওয়াহিদাকে বাঁচাতে এগিয়ে এলেও হামলার শিকার হন ওয়াহিদার বাবা ওমর আলীও আহত হন। তবে ওয়াহিদার সঙ্গে ঘুমিয়ে থাকা তাঁর সন্তানের কোনও ক্ষতি হয় নি।

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.