মে ১২, ২০২১

Bangla Kagoj । News from Bangladesh, World and Universe at any Language

বাংলা ভাষাসহ পৃথিবির সব ভাষায় সর্বশেষ ও প্রধান খবর, বিশেষ প্রতিবেদন, সম্পাদকীয়, পাঠকমত, খেলাধুলা ও বিনোদনসহ সব প্রান্তের গুরুত্বপূর্ণ সকল খবর।

নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে ব্রেন্টনের অভূতপূর্ব সাজা

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে গুলি করে বাংলাদেশিসহ ৫১ মুসল্লিকে হত্যার ঘ্টনায় ব্রেন্টন ট্যারান্টকে আজীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তার প্যারোলের কোনও সুযোগ থাকছে না অর্থাৎ তাকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে, যা নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে প্রথম।

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে গুলি করে বাংলাদেশিসহ ৫১ মুসল্লিকে হত্যার ঘ্টনায় ব্রেন্টন ট্যারান্টকে আজীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তার প্যারোলের কোনও সুযোগ থাকছে না অর্থাৎ তাকে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে, যা নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে প্রথম।

বৃহস্পতিবার (২৭ আগস্ট) বিবিসি এ তথ্য জানায়।

অস্ট্রেলিয়ান নাগরিক ব্রেন্টনের বিরুদ্ধে ৫১ জনকে হত্যা, ৪০ জনকে হত্যাচেষ্টা এবং সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য অভিযুক্ত করা হয়েছে। গত সোমবার (২৪ আগস্ট) চার দিনব্যাপী এ সাজার শুনানি শুরু হয়।

বিচারক ব্রেন্টন ট্যারান্ট-এর সাজা ঘোষণার সময় হামলায় বেঁচে যাওয়া এবং ভুক্তভোগীদের স্বজনরা আদালতে তার সামনেই উপস্থিত ছিলেন।

ব্রেন্টন রায়ের বিরুদ্ধে কোনও প্রতিবাদ জানান নি। যদিও এর আগে ব্রেন্টন দাবি করেছিলেন তিনি বর্ণবাদী নন।

ব্রেন্টন বলেন, তার রাজনৈতিক ও সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি ততটা বাস্তব ছিল না। তিনি নিজেকে সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন মনে করতেন এবং সমাজের ক্ষতি করতে চেয়েছিলেন।

২০১৯ সালের ১৫ মার্চ ওই হামলা চালানোর সময় মাথার হেলমেটে ক্যামেরা লাগিয়ে ফেসবুকে সরাসরি সম্প্রচার করেছিলেন ব্রেন্টন। প্রথমে আল নুর মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে আসা মুসল্লিদের ওপর গুলি শুরু করেন তিনি। তারপর এই মসজিদ থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে লিনউড মসজিদের উদ্দেশে গাড়ি চালান। সেখানেও মুসল্লিদের ওপর অতর্কিতে গুলি করেন ব্রেন্টন।

বিজ্ঞাপন

এই ঘটনার সময় ওই দুটি মসজিদের খুব কাছেই ছিলেন নিউজিল্যান্ড সফররত বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সদস্যরা। চলতি বছরের মার্চে অপ্রত্যাশিতভাবেই দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দেন ব্রেন্টন ট্যার‌ান্ট।

দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশ নিউজিল্যান্ডে মৃত্যুদণ্ডের বিধান না থাকায় তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

এই হামলা বিশ্বজুড়ে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছিল। হামলার পর দ্রুত অস্ত্র আইনে পরিবর্তন আনে নিউজিল্যান্ড। দেশটির সরকার দ্রুত যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করে প্রশংসিত হয়।

Facebook Comments Box

Contact us

বাংলা কাগজ এ আপনাকে স্বাগতম।

X
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
Facebook91m
Twitter38m
LinkedIn4m
LinkedIn
Share