মজনুর বিচার শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : ধর্ষণ মামলার আসামি মজনুর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। আগামী ৯ সেপ্টেম্বর ওই মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের তারিখ ঠিক করা হয়েছে। আর ওই অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে মামলার বিচার শুরু হলো।

বুধবার (২৬ আগস্ট) ভার্চুয়াল শুনানি নিয়ে ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৭-এর বিচারক বেগম মোসাম্মৎ কামরুন্নাহার অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন। একই সঙ্গে মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের তারিখও ঠিক করেন।

সূত্র জানায়- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কাশিমপুর কারাগারে আছেন আসামি মজনু। তার পক্ষে কোনও আইনজীবী আদালতে উপস্থিত না থাকলেও মজনু ভার্চুয়ালি নিজেকে নির্দোষ দাবি করে আদালতের কাছে ন্যায়বিচার চান।

গত ১৬ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার মামলায় মজনুর বিরুদ্ধে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)।

আর গত ১৬ আগস্ট ওই মামলার অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে অভিযোগ গঠনের শুনানির জন্য ২৬ আগস্ট দিন ঠিক করেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

জানা গেছে- মামলার অভিযোগপত্রে ১৬ জনকে সাক্ষী করা হয়। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর মোবাইল ফোনসহ মামলার আলামত হিসেবে ২০ ধরনের জিনিসপত্র জব্দ দেখানো হয়েছে।

পুলিশের পক্ষ থেকে আদালতকে প্রতিবেদন দিয়ে বলা হয়, গত ৫ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই ছাত্রী রাজধানীর কুর্মিটোলা বাসস্ট্যান্ড থেকে ফুটপাত দিয়ে হেঁটে গলফ ক্লাবসংলগ্ন স্থানে পৌঁছান। এ সময় আসামি মজনু তাঁকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা করেন। পরে র‍্যাব-১ অভিযান চালিয়ে মজনুকে গ্রেপ্তার করে।

গত ৯ জানুয়ারি মজনুকে ৭ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি দেন ঢাকার সিএমএম আদালত।

মজনু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে ধর্ষণ করার কথা স্বীকার করে গত ১৬ জানুয়ারি আদালতে জবানবন্দি দেন।

পুলিশ আদালতকে প্রতিবেদন দিয়ে বলেছে, আসামি মজনু একজন অভ্যাসগত ধর্ষক। প্রতিবন্ধী ও ভ্রাম্যমাণ নারীদের ধর্ষণ করে আসছিলেন তিনি।

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.