অক্টোবর ২৮, ২০২১

The Bangla Kagoj

বিশ্বের সব দেশে, সব ভাষায়, সব সময় । বাংলা কাগজ । আপনার কাগজ । banglakagoj.net (আমাদের কোনও জাতীয় পত্রিকা নেই)।

মোহাম্মদপুরে ভুয়া ডিবি চক্রের মাদক ব্যবসা, অপর ঘটনায় গ্রেপ্তার ১১

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : রাজধানীর মোহাম্মদপুরের চাঁদ উদ্যান এলাকায় গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়দানকারী কয়েকজন নিয়ন্ত্রণ করছেন মাদক ব্যবসা। একইসঙ্গে ওই চক্রের কাছে হেনস্থা হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। পাশাপাশি তাদের বিরুদ্ধে রয়েছে ছিনতাইয়ের অভিযোগও। অপরদিকে, ভুয়া ডিবি চক্রের ১১ জনকে গ্রেপ্তার করেছেন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : রাজধানীর মোহাম্মদপুরের চাঁদ উদ্যান এলাকায় গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়দানকারী কয়েকজন নিয়ন্ত্রণ করছেন মাদক ব্যবসা। একইসঙ্গে ওই চক্রের কাছে হেনস্থা হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। পাশাপাশি তাদের বিরুদ্ধে রয়েছে ছিনতাইয়ের অভিযোগও। অপরদিকে, ভুয়া ডিবি চক্রের ১১ জনকে গ্রেপ্তার করেছেন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

অনুসন্ধানে জানা গেছে- মোহাম্মদপুরের চাঁদ উদ্যান এলাকায় এখন ইয়াবা ব্যবসা এক রকম জমজমাট। এক্ষেত্রে ফার্মেসির আড়ালেও চলছে মাদক ব্যবসা। পাশাপাশি ‘ডিবি’ ‘সাইনবোর্ডধারী’ মাইক্রোবাস বা নোহা গাড়িতে করে আনা হচ্ছে ইয়াবার চালান। সেগুলো বিক্রি হচ্ছে চাঁদ উদ্যান ও ঢাকা উদ্যানসহ আশেপাশের এলাকায়।

এ ব্যাপারে জানার জন্য সোমবার (২৪ আগস্ট) বিকেলে মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাংলা কাগজকে বলেন- এ ধরনের অভিযোগের বিষয়ে আমরা কাজ করব। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

গ্রেপ্তার ভুয়া ১১ ডিবি : ঘটনার সূত্রপাত ১৭ আগস্ট। ডিবি পরিচয়ে এক কাপড় ব্যবসায়ীর ৫৫ হাজার টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যায় একদল দুর্বৃত্ত।

কোতোয়ালি থানায় করা মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, এই পরিচয়ে ছিনতাইয়ের ঘটনা এটাই প্রথম না; এভাবে নিয়মিত ছিনতাই–লুটপাটের ঘটনা ঘটাচ্ছে ১১ জনের একটি দল। দলটিকে শনাক্ত ও দলের সদস্যদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তার করা ব্যক্তিরা হলেন- সরোয়ার হোসেন ওরফে সরোয়ার খাঁ, মো. দুলাল (৩৮), আনোয়ার গুলদার (৪২), আমির (৩৮), মো. নাছির হাওলাদার (২৮), ইমন ওরফে কাজল কুমার দে (২৮), মো. ইকবাল (৩৪), মো. সোহাগ খান (২৩), মো. জাকির হোসেন (৩৮), মো. সুমন (৩০) ও মো. রমজান (২৭)।

সহকারী কমিশনার (কোতোয়ালি) মো. সাইফুল আলম মুজাহিদ জানান, ওরা গ্রুপ তৈরি করে প্রতিদিন সন্ধ্যাবেলায় ঠিক করে নিত, কোন এলাকায় ছিনতাই করবে। সে অনুযায়ী নির্দিষ্ট এলাকায় অবস্থান নিয়ে টার্গেটকে অনুসরণ করত। তারপর ডিবির পরিচয় দিয়ে টার্গেটের দেহ তল্লাশি করার নাম করে টাকাপয়সা ও মূল্যবান জিনিস ছিনিয়ে নিত।

কাপড় ব্যবসায়ীর কাছ থেকে যে জায়গায় ছিনতাই হয়েছিল, তার আশপাশের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করে পুলিশ। ওই ফুটেজ এবং তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় প্রথমে রায়সাহেব বাজার মোড় থেকে মো. সোহাগ নামের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। সোহাগের দেওয়া তথ্যমতে পরে অন্যদের শনাক্ত করা হয়।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ ওই দিন ই গাজীপুর জেলার টঙ্গী থানার দত্তপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে চক্রের ইকবাল, জাকির ও সুমনকে গ্রেপ্তার করে।

পরদিন ২০ আগস্ট ভোরে টঙ্গীর চেরাগ আলী থেকে সরোয়ার খাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে সরোয়ারকে নিয়ে পল্টন ও নর্দা এলাকায় অভিযান করে দুলাল, আনোয়ার, আমির, নাসির, ইমন ও রমজানকে গ্রেপ্তার করে তাঁরা।

এ সময় তাঁদের কাছ থেকে এক জোড়া হাতকড়া, দুটি ডিবি জ্যাকেট ও ছিনতাইকৃত টাকা উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তার করা ব্যক্তিদের মধ্যে সোহাগ, ইকবাল ও দুলাল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে অন্য আটজনকে জিজ্ঞাসাবাদে চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

গ্রেপ্তার করা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

Facebook Comments Box

Contact us

বাংলা কাগজ এ আপনাকে স্বাগতম।

X
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
Facebook91m
Twitter38m
LinkedIn4m
LinkedIn
Share