পর্বতারোহী রেশমাকে চাপা দেওয়া সেই গাড়ির চালক গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : পর্বতারোহী, সাইক্লিস্ট ও শিক্ষক রেশমা নাহার রত্নাকে চাপা দেওয়া মাইক্রোবাসসহ এর চালক মো. নাঈমকে (২৭) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) ঢাকার কাফরুল থানাধীন ইব্রাহিমপুর থেকে শেরেবাংলা নগর থানা পুলিশ মাইক্রোবাস ও এর চালককে গ্রেপ্তার করে।

শেরেবাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানে আলম মুন্সী জানান, এক যুবককে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে আমরা নিশ্চিত হয়েছি যে দুর্ঘটনার সময় তিনিই গাড়িটি চালাচ্ছিলেন।

গত ৭ আগস্ট রাজধানীর সংসদ ভবন এলাকার চন্দ্রিমা উদ্যান সংলগ্ন লেক রোডে সাইক্লিং করার সময় মাইক্রোবাসের চাপায় নিহত হন রেশমা নাহার রত্না।

ওসি জানান, কালো রঙের ১২ সিটের হায়েস মাইক্রোবাসটির মালিক একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কাছে মাসিক ভিত্তিতে ভাড়া দিয়েছেন। ঘটনার দিন ওই প্রতিষ্ঠানের নাইট শিফটে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিভিন্ন গন্তব্যে নামিয়ে দেওয়ার সময় দুর্ঘটনাটি ঘটে।

বিজ্ঞাপন

গ্রেপ্তারকৃত নাঈমকে বুধবার (১৯ আগস্ট) আদালতে পাঠিয়ে পাঁচদিনের রিমান্ড চাওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

ঘটনার তদন্ত সংশ্লিষ্ট একজন পুলিশ কর্মকর্তা জানান, দুর্ঘটনার পর ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন এলাকার প্রয়োজনীয় সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহের জন্য তিনটি পৃথক টিম গঠন করা হয়। কালো মাইক্রোবাসটির সম্ভাব্য যাত্রাপথ ধরে মাইক্রোবাসটির অবস্থান শনাক্তে কাজ শুরু করা হয়। প্রাথমিকভাবে মূল সড়ক, অন্যান্য সড়ক, বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান ও আবাসিক স্থাপনার প্রবেশ পথে থাকা ৩৮২টি সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ ও পর্যালোচনা করে ঘটনার সময়ের সঙ্গে মিলিয়ে মাইক্রোবাসটির যাত্রাপথ শনাক্ত করা হয়।

এসব সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে কালো হায়েস মডেলের মাইক্রোবাসটির বেশ কিছু অস্পষ্ট ডিজিটাল নম্বর প্লেটের ছবি পাওয়া যায়। প্রাপ্ত নম্বরগুলো পুরোপুরি বোঝা যাচ্ছিল না।

প্রাথমিকভাবে ১১২টি মাইক্রোবাস শনাক্ত করা হয়। এরপর বিআরটিএসহ বিভিন্ন মাধ্যম থেকে এসব মাইক্রোবাসের মালিকানা, রঙ, সিটের সংখ্যা ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করে অবশেষে ঘাতক মাইক্রোবাসটি শনাক্ত করে জব্দ এবং এর চালককে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় পুলিশ।

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.