অস্ত্র মামলায় জামিন নামঞ্জুর, তবুও রিমান্ডে প্রফুল্ল শাহেদ!

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : প্রতারক-জালিয়াত মো. শাহেদের সাজা এক রকম সুনিশ্চিত। বুধবারও (১৯ আগস্ট) তার জামিন মঞ্জুর করেন নি আদালত। তার ওপর চলছে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) রিমান্ড। সে যাই হোক, ভুরি ভুরি মামলায় প্রতারক শাহেদের দণ্ড যেন ঘুরছে আশেপাশেই। কিন্তু এমন অবস্থায়ও মো. শাহেদকে দেখা যাচ্ছে ফুরফুরে, প্রফুল্ল মেজাজে! কেউবা আবার ছবি তুললেই মুখ ঘুরিয়েও দেখছেন তিনি। মো. শাহেদের রিমান্ডের তৃতীয় দিনে এমন দৃশ্যই ধরা পড়েছে দুদকে।

এদিকে, ঋণ জালিয়াতির মামলায় রিমান্ডের তৃতীয় দিনেও (বুধবার- ১৯ আগস্ট) মো. শাহেদকে জিজ্ঞাসাবাদের তেমন একটা সুযোগ পায় নি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। জিজ্ঞাসাবাদ শুরুর পরপরই তাকে নিয়ে ছুটতে হয় আদালতে। সেখানে তার ডাক্তারি পরীক্ষার রিপোর্ট পেশ ও অস্ত্র মামলার নানা কর্মকাণ্ড শেষে দুপুর গড়ায় শাহেদসহ সংশ্লিষ্টদের দুদকে ফিরতে।

তবে বুধবার অস্ত্র মামলায় মো. শাহেদের জামিন মঞ্জুর করেন নি আদালত।

জানা গেছে- ঋণ জালিয়াতির মামলায় দুদকের জিজ্ঞাসাবাদের তিনদিনের মধ্যে দুদিনই গেল ‘কালক্ষেপণে’। কখনও অসুস্থতার কথা বলে, আবার কখনও আদালত ঘুরে।

সাবেক ফারমার্স ব্যাংকের দুই কোটি ৭২ লাখ টাকা ঋণ জালিয়াতি ও আত্মসাতের ঘটনায় রিজেন্টের মালিক শাহেদ করিমকে বুধবার (১৯ আগস্ট) সকালে নিয়ে আসা হয় দুদক কার্যালয়ে। এ সময় তিনি ছিলেন বেশ প্রফুল্ল মেজাজে। তখন সাতদিনের রিমান্ডের তৃতীয়দিনের মতো জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে দুদক।

কিন্তু ১১টার পর শাহেদ করিমকে নিয়ে যাওয়া হয় আদালতে। এ সময় তার পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্ট পেশ করা হয়। অস্ত্র মামলায় অভিযোগ আমলে নেওয়ার আবেদনে, শাহেদ করিমকে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে হাজির করা হয়। শুনানিতে শাহেদ, জামিন আবেদন করলে তা নামঞ্জুর করেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

শাহেদের আইনজীবী বলেন, সে মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে গেছে। যেহেতু তার মামলা আছে তার জামিন চাইছি এ পর্যায়ে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বলেন, তার জামিন আবেদন আদালত না মঞ্জুর করেছেন।

দুপুর একটায় রিজেন্টের মালিক শাহেদ করিমকে আবারও নিয়ে আসা হয় দুদকে। শুরু হয় জিজ্ঞাসাবাদ।

এদিকে দুদকের এক সাবেক পিপি জানিয়েছেন, কোনও কারণে জিজ্ঞাসাবাদে কালক্ষেপণ হলে, পরে আবেদন ছাড়াই সংশ্লিষ্টজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারে দুদক।

প্রসঙ্গত, রিজেন্ট হাসপাতালের সত্বাধিকারি মো. শাহেদের বিরুদ্ধে প্রতারণা, ঋণ জালিয়াতি ও অস্ত্র মামলাসহ দেড় শতাধিক অভিযোগের অনুসন্ধান ও তদন্ত চলমান রয়েছে।

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.