করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের জন্য আলাদা অর্থ রয়েছে : অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন বা টিকা কেনার জন্য আলাদা অর্থ রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

তিনি বলেন, টিকার জন্য একটি সোর্সের ওপর নির্ভর না করে একাধিক সোর্স থেকে টিকা সংগ্রহের ব্যবস্থা করতে হবে।

যাঁরাই টিকা তৈরি করে, তাঁদের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ করতে হবে। এজন্য আমরা কিছু অর্থ রেখে দিয়েছি, যখন প্রয়োজন হবে, তখন যাতে টিকা কিনতে পারি।

বুধবার (১২ আগস্ট) অনলাইন জুমে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান অর্থমন্ত্রী।

বিজ্ঞাপন

করোনার টিকা বিষয়ে সরকারের অবস্থান সম্পর্কে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, করোনার টিকার বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মিটিং করবেন; সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য যে, আমরা কোন দেশ থেকে টিকা সংগ্রহ করব। তাছাড়া ইতোমধ্যে সংগ্রহের কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কিনা, তাও আমরা জানতে পারব। যেহেতু আমরা এখনও এ নিয়ে কোনও সিদ্ধান্ত পাই নি, তাই আমার মনে হয়- আমার চূড়ান্তভাবে কিছু বলা ঠিক হবে না।

তিনি বলেন- টিকা নিয়ে আমার সাধারণ জ্ঞানে যা বুঝি যে, একটি সিঙ্গেল সোর্সের ওপর বসে থাকলে হয়তো কষ্ট হবে। সেজন্য একাধিক সোর্স থেকে এই টিকা আমরা যদি সংগ্রহ করতে পারি। ইতোমধ্যেই দেখেছি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে, অগ্রিম টাকা-পয়সাও দিয়েছে। আমি স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে সে কথাই বলেছি, আমাদেরও সে ধরনের ব্যবস্থায় যেতে হবে।

বিশিষ্ট এ চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট আরও বলেন- অক্সফোর্ড ইতোমধ্যে ভারতসহ বিভিন্ন দেশের সঙ্গে চুক্তি করেছে। আমরা যদি সরাসরি অক্সফোর্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে না পারি, তাহলে ভারতের কোম্পানির সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে পারি। আমাদের পিছিয়ে থাকলে হবে না। অন্য সোর্স থেকে চেষ্টা করতে হবে, যেখান থেকে পাব, সেখান থেকেই আমাদের ভ্যাকসিন নিতে হবে। টিকা আমাদের লাগবে। যদিও রাশিয়া টিকা প্রয়োগ করেছে। যাঁরাই টিকা তৈরি করে, তাঁদের সঙ্গেই আমাদের যোগাযোগ করতে হবে। এজন্য আমরা কিছু অর্থ রেখে দিয়েছি। যাতে করে যখনই প্রয়োজন হবে, তখনই আমরা অর্থায়ন করতে পারি, সেই টিকা কেনার জন্য।

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.