মন্তব্য প্রতিবেদন : বাংলাদেশে এ কোন অশুভ দৃষ্টি!

সম্পাদকীয় মত, বাংলা কাগজ : সাবেক মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় অনেকে বলাবলি করেছিলেন, সেনাবাহিনী ও পুলিশের সম্পর্কে কিছুটা হলেও চিড় ধরবে। কিন্তু সেটা হয় নি। যা নিজেরাই জানিয়েছেন- সেনাপ্রধান ও পুলিশপ্রধান।

এখন আবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়- অনুরোধ করেছে যেন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অনুমতি ছাড়া কোনও সরকারি বা বেসরকারি হাসপাতালে অভিযান পরিচালনা না করে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এটি নিয়ে তৈরি হয়েছে ভিন্নমত।

মো. শাহেদের মামলা র‌্যাব ডিবির কাছ থেকে নিতে আবেদন করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে। যা ছিল এক রকম দৃষ্টিকটু।

বিজ্ঞাপন

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবির মিলনকে ওএসডি (অন স্পেশাল ডিউটি) করা নিয়েও চলছে নানা কথা।

সর্বোপরি- আমাদের মনে রাখতে হবে করোনাভাইরাসের এ দুর্যোগের সময়ে যেন আমাদের মাধ্যমে কোনও অশুভ চক্র লাভবান না হয়। পূর্ণ না হয় তাদের মনোবাসনা। এক্ষেত্রে মনে রাখা বাঞ্চনীয়- সম্প্রতি বা কিছুকাল আগে দুর্নীতি ও জালিয়াতির অভিযোগে যাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে, তারা যেন কোনোভাবেই এক হয়ে; সরকারবিরোধি তথা রাষ্ট্রবিরোধি কোনও পদক্ষেপ বা কার্যক্রম গ্রহণ করতে না পারে। একইসঙ্গে পুলিশকে যেন আমরা কোনোভাবেই বিতর্কিত করে না ফেলি; তাহলে দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি খারাপের দিকেই যাবে। এক্ষেত্রে দেশের সবগুলো বাহিনীর মধ্যে আরও ব্যাপকহারে সমন্বয় প্রয়োজন। আরও সমন্বয় প্রয়োজন মন্ত্রণালয়গুলোর মধ্যেও।

ধন্যবাদ সবাইকে।

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.