এক অ্যাপ তৈরিতেই ৫০ গুণ বেশি খরচ দেখিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর!

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : করোনাভাইরাসের এ যুগে সবকিছু নিয়েই যেন চলছে ব্যবসা! আর ব্যবসা হলে তো ভালোই হতো; এ যেন পুকুরচুরি-জোচ্চুরি! এরই অংশ হিসেবে একটি অ্যাপ তৈরি করতে প্রায় ৫০ গুণ বেশি খরচ দেখিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এ ব্যাপারে জানার জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বর্তমান মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এ বি এম খুরশীদ আলমের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায় নি।

আর সাবেক মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদের মুঠোফোনে কল দেওয়া হলেও সেটি বন্ধ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে- করোনাভাইরাস সংক্রান্ত তথ্য ও উপসর্গযুক্ত রোগী শনাক্তে তৈরি করা হয়েছে মোবাইল অ্যাপ- করোনাবিডি। অ্যাপটি তৈরি করেছে ব্রেইন স্টেশন নামে একটি প্রতিষ্ঠান। করা হয়েছে বিশ্বব্যাংকের ১১শ কোটি টাকার ঋণ প্রকল্পের অর্থায়নে। আর ওই অ্যাপের ব্যয় হয়েছে প্রায় চার কোটি ৭৫ লাখ টাকা। অথচ প্রযুক্তি সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ ধরনের একটি অ্যাপ তৈরিতে ১০ লাখ টাকার বেশি খরচ হওয়া কোনোভাবেই উচিত নয়।

বিজ্ঞাপন

বিষয়টির ব্যাপারে জানার জন্য এর প্রকল্প প্রধান অধ্যাপক ইকবাল কবীরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তিনি কোনও সদুত্তর দিতে পারেন নি। বলেন, এক বছরের মেনটেনেন্স খরচসহ পৌনে পাঁচ কোটি টাকা নেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে (কবীরের দেওয়া তথ্যমতে)- করোনাবিডি অ্যাপ তৈরিতে খরচ ধরা হয়েছে ৬৫ লাখ টাকা। আর হোস্টিংয়ের খরচ দেখানো হয়েছে এক কোটি ২৫ লাখ টাকা। আর এ ধরনের বাড়তি দাম ধরার পরও অ্যাপটি তৈরিতে মোট ব্যয় দাঁড়িয়েছে এক কোটি ৯০ লাখ টাকা। অথচ কীভাবে চার কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয় দেখানো হলো- তা নিয়েই দেখা দিয়েছে বড় প্রশ্ন।

বিষয়টির ব্যাপারে কবীর বলেন- বাকি অর্থ এক বছরের মেনটেনেন্স খরচ।

‌‘কিন্তু অ্যাপ তৈরিতে যেখানে সর্বোচ্চ খরচ হওয়ার কথা ১০ লাখ টাকা, সেখানে দেখানো হয়েছে প্রায় দুই কোটি টাকা। আর মেনটেনেন্স খরচ দুই থেকে তিন লাখ টাকার বেশি হওয়া কোনোভাবেই উচিত নয়’- এমন তথ্য জানালে কবীর বিষয়টি নিয়ে আর কোনও ধরনের কথা বলতে রাজি হন নি।

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.