‘বিশাল বড় ব্যাগ’ নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে দুদকের অভিযান!

মন্তব্য প্রতিবেদন : দেশের প্রতিটি খাতে যেন দুর্নীতি এক রকম ঝেঁকে বসেছে। ঢুকে গেছে রন্ধ্রে রন্ধ্রে। এক্ষেত্রে এমন কোনও খাত ও সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান নেই; যেখানে দুর্নীতি ঢুকে যায় নি। ফলে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কিছু কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ এসেছে নানা সময়। তবে তাই বলে দুর্নীতি দমনে অভিযান পরিচালিত হবে না! হবে, সবই হবে। কিন্তু সেটা হতে হবে সব খাতে দুর্নীতিবাজদের ‘পরিষ্কার’ করার মাধ্যমেই।

এমন অবস্থায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী শুধু নয় দুদকের কর্মকর্তাদেরও আইনের আওতায় আনতে হবে। তাঁদের শাস্তির ব্যবস্থাও করতে হবে। যাতে কোনোভাবেই একজন সাধারণ মানুষ হয়রানির শিকার না হন কিংবা কোনও খাতের দুর্নীতিবাজ অনিয়ম করে পার পেয়ে না যান। যাতে কোনোভাবেই বিপদে না পড়েন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার। কারণ বর্তমান সরকার মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের। আর এ সরকারের কোনও ক্ষতি হলে, সেটি মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তিরই ক্ষতি। তবে তাই বলে বর্তমান সরকারের কোনও মন্ত্রী বা সাংসদও যেন দুর্নীতিতে নিমজ্জিত না থাকেন, সেটিও আমাদের দেখতে হবে।

একই বিষয় নিয়ে লেখা বাংলা কাগজের কাছে লিখিত আকারে পাঠিয়েছেন চারজন পাঠক। যার সারমর্ম ঠিক এ রকমই।

তাঁরা লিখেছেন- আমাদের চোখ তো এক রকম চড়কগাছ হয়ে গিয়েছে, কারণ যেখানে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দুর্নীতির দায় এড়াতে পারেন না এর মহাপরিচালক, অতিরিক্ত মহাপরিচালকসহ অন্য শীর্ষ কর্মকর্তারা। সেখানে দুর্নীতি দমন কমিশনের কর্মকর্তারা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে রোববার (১৯ জুলাই) অভিযান চালাতে গিয়েছেন বড় একটি ব্যাগ নিয়ে। যদিও তাঁরা ব্যাগটি বহন করেন নি। কিন্তু ব্যাগটি বহন করেছে তাঁদের সঙ্গে যাওয়া এক কর্মচারী।

বিজ্ঞাপন

অনেকেই বলতে পারেন- ব্যাগ বহনে কেন প্রশ্ন উঠবে? কিন্তু এতো বড় অস্বচ্ছ ব্যাগ বহনে প্রশ্ন উঠতেই পারে। কারণ তাঁদের যদি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছ থেকে কোনও কিছু জানার থাকে বা ডকুমেন্ট নেওয়ার থাকে, তবে স্বচ্ছ ব্যাগ বহন করা যেতে পারে। আর এ ধরনের ক্ষেত্রে ব্যাগই বা বহন করতে হবে কেন, শুধু ডকুমেন্টগুলো হাতে করে নিলেই কী হয়।

আবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছ থেকে নাকি কোনও ডকুমেন্টই পায় নি দুদক। তাহলে ব্যাগ এতো ভারী হলো কী করে? যা আজ (রোববার- ১৯ জুলাই) সব টেলিভিশন চ্যানেল দেখিয়েছে। আর টেলিভিশন চ্যানেলগুলো দেখিয়েছে বলেই আমরা দেখেছি, যদি না দেখাতো, তবে তো দুদকের অনুসন্ধান যে কী রকম, ‌’জাতি তা দেখতে পেত না’।

এমন অবস্থায় শুধু স্বাস্থ্য খাত নয়; সব খাতের সকল দুর্নীতিবাজকে আইনের আওতায় আনা হোক। করা হোক তাঁদের বিচার। দেওয়া হোক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি। এটাই আমাদের বাংলাদেশি তথা বাঙালিদের চাওয়া।

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.