রিজার্ভ ও রেমিট্যান্সে রেকর্ড

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : বিশ্বজুড়ে চলছে মহামারি। করোনাভাইরাসের প্রকোপের ফলে এমনিতেই প্রবাসীদের আয়ে নিম্নগতি দেখা দিয়েছে। কিন্তু এ অবস্থা পুরোপুরি উল্টে গিয়ে দেশে এসেছে রেকর্ড পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা। ফলে সৃষ্টি হয়েছে রেকর্ড রিজার্ভ।

অবশ্য এই রেকর্ড রিজার্ভের ক্ষেত্রে বিশ্বব্যাংক, আইএমএফ, এডিবি ও এআইআইবি’র ঋণ সহায়তাও অবদান রেখেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশে এর আগে কখনই রিজার্ভ ৩৬ বিলিয়ন ডলার ছাড়ায় নি। আর এক অর্থবছরে আসে নি এত বেশি রেমিটেন্স।

অথচ সদ্য শেষ হওয়া জুন পর্যন্ত (গত বছর জুলাই থেকে চলতি বছরের জুন) ২০১৯-২০ অর্থবছরে প্রবাসী বাংলাদেশিরা পাঠিয়েছেন ১৮৩ কোটি ৩০ লাখ ডলার।

এর আগে গেল বছরের জুনে শেষ হওয়া অর্থবছরে (২০১৮-১৯) প্রবাসীরা পাঠিয়েছিলেন ১৭৪ কোটি ৮০ লাখ ডলার।

বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) বিকেলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক কাজী ছাইদুর রহমান জানান, ৩০ জুন শেষ হওয়া ২০১৯-২০ অর্থবছরে প্রবাসী বাংলাদেশিরা পাঠিয়েছেন মোট এক হাজার ৮২০ কোটি ৩০ লাখ ডলার।

এই অংক আগের ২০১৮-১৯ অর্থবছরের চেয়ে ১০ দশমিক ৮৫ শতাংশ বেশি। এক্ষেত্রে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এসেছিল মোট ১৬ দশমিক ৪২ বিলিয়ন ডলার।

তথ্যমতে, মহামারিতেও রেমিট্যান্সের এই উল্লম্ফনের কারণে মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে রিজার্ভ ৩৫ বিলিয়ন ডলার থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৬ বিলিয়ন ডলারে।

রেকর্ড সৃষ্টি করে বৃহস্পতিবার দিন শেষে রিজার্ভের পরিমাণ দাঁড়ায় ৩৬ দশমিক ১৪ বিলিয়ন ডলারে।

Facebook Comments Box

Leave a Reply

Your email address will not be published.