মে ১২, ২০২১

Bangla Kagoj । News from Bangladesh, World and Universe at any Language

বাংলা ভাষাসহ পৃথিবির সব ভাষায় সর্বশেষ ও প্রধান খবর, বিশেষ প্রতিবেদন, সম্পাদকীয়, পাঠকমত, খেলাধুলা ও বিনোদনসহ সব প্রান্তের গুরুত্বপূর্ণ সকল খবর।

কেমন আছেন ট্রাম্প?

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

একের পর এক জনমত জরিপ প্রকাশিত হচ্ছে, এর প্রতিটিতে ট্রাম্প তাঁর ডেমোক্রেটিক প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের চেয়ে পিছিয়ে পড়ছেন। কারণ একে তো করোনাভাইরাস নিয়ে বিপদ কমে নি, তার ওপর যুক্ত হয়েছে পুলিশি অত্যাচারের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী নাগরিক অসন্তোষ।

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : একের পর এক জনমত জরিপ প্রকাশিত হচ্ছে, এর প্রতিটিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর ডেমোক্রেটিক প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের চেয়ে পিছিয়ে পড়ছেন। কারণ একে তো করোনাভাইরাস নিয়ে বিপদ কমে নি, তার ওপর যুক্ত হয়েছে পুলিশি অত্যাচারের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী নাগরিক অসন্তোষ।

সিএনএনের একটি জরিপে ট্রাম্পের সঙ্গে বাইডেনের ফারাক ১৪ পয়েন্ট। সে জরিপ ঠেকাতে ট্রাম্প আদালতে যাওয়ার হুমকি দিয়েছেন, কিন্তু কোনও কাজ হয় নি। তাঁর সাবেক জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন হোয়াইট হাউসে তাঁর সময়ের অভিজ্ঞতার খোলামেলা বিবরণ দিয়ে যে বই লিখেছেন, সেটিও আটকানোর চেষ্টা করছেন, কিন্তু আদালতের কোনও সিদ্ধান্ত আসার আগেই সে বই সবার হাতে হাতে।

এসব ছাপিয়ে গোদের ওপর ফোঁড়ার মতো রয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট। নিজের পছন্দমতো দুজন বিচারপতি নিয়োগ দিয়েছেন ট্রাম্প। অনেকে বলেন, এটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে রক্ষণশীল আদালত। প্রধান বিচারপতি জন রবার্টসসহ মোট নয়জন বিচারপতির পাঁচজনই রক্ষণশীল, তাঁরা কার্যকরভাবে রিপাবলিকান ভাবাদর্শের সমর্থক। অথচ সেই সুপ্রিম কোর্টের পরপর দুটি সিদ্ধান্ত তাঁর প্রশাসনের বিপক্ষে গেছে।

সবশেষ সিদ্ধান্তটি এসেছে শুক্রবার (১৯ জুন)। দেশের এই সর্বোচ্চ আদালত ৫-৪ ভোটে ওবামা আমলে গৃহীত ‘ডাকা’ কর্মসূচিকে বহাল রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। ২০১২ সালে প্রেসিডেন্ট ওবামা এই কর্মসূচির অধীনে প্রায় সাড়ে ছয় লাখ বৈধ কাগজপত্রহীন তরুণ-তরুণীকে সাময়িক বৈধতা প্রদান করেছিলেন। এই সিদ্ধান্ত অবৈধ- এই যুক্তিতে ট্রাম্প প্রশাসন ‘ডাকা’ কর্মসূচিটি বাতিলের জন্য আবেদন করেছিল। সুপ্রিম কোর্ট তাঁর রায়ে বলেছেন- এই কর্মসূচি কেন বাতিল হবে, ট্রাম্প প্রশাসন এর পক্ষে পর্যাপ্ত যুক্তি তুলে ধরতে পারে নি। এই কর্মসূচি বাতিল হলে এত বিপুলসংখ্যক তরুণ-তরুণী, যারা অল্প বয়সে মা–বাবার সঙ্গে এ দেশে এসে রয়ে গেছে, তাঁদের কী হবে, সে বিষয়ে কোনও সদুত্তর দিতে পারে নি ট্রাম্প প্রশাসন।

প্রধান বিচারপতি জন রবার্টস আদালতের চারজন উদারনৈতিক বিচারপতির সঙ্গে যৌথভাবে এই রায় প্রদান করেন। আদালতের রায়টিও তাঁর লেখা। তিনি অবশ্য ‘ডাকা’ কর্মসূচি অবৈধ এমন রায় ঘোষণা করেননি; শুধু বলেছেন- এই কর্মসূচি বাতিলের আগে যে পদ্ধতিগত প্রক্রিয়া অনুসরণ করা উচিত ছিল, ট্রাম্প প্রশাসন তা করতে ব্যর্থ হয়। পরে অধিক প্রস্তুত হয়ে তারা ফের বিষয়টি উত্থাপন করতে পারবে।

বিজ্ঞাপন

মাত্র এক সপ্তাহ আগে সুপ্রিম কোর্ট আরেক সিদ্ধান্তে কর্মক্ষেত্রে সমকামী ও লিঙ্গান্তরিত ব্যক্তিদের ব্যাপারে যে কোনও বৈষম্য অবৈধ বলে ঘোষণা করেন। সেটিও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জন্য একটি বড় ধরনের বিপর্যয়। ৬-৩ ভোটে গৃহীত এই রায়ে আদালতের চারজন উদারনৈতিক বিচারকের সঙ্গে যুক্ত হন প্রধান বিচারপতি জন রবার্টস ও ট্রাম্প কর্তৃক মনোনীত নিল গোরসাচ।

যুক্তরাষ্ট্রের অধিকাংশ রিপাবলিকান-নিয়ন্ত্রিত অঙ্গরাজ্যে সমকামী অথবা লিঙ্গান্তরিত হওয়ার কারণে যে কোনও ব্যক্তিকে কর্মক্ষেত্র থেকে বাদ দেওয়ার আইন প্রচলিত রয়েছে। ট্রাম্প-সমর্থক হিসেবে পরিচিত ইভানজেলিক্যাল খ্রিস্টান ভোটাররা এই বৈষম্যভিত্তিক আইনের সমর্থক। নির্বাচনের আগে ও পরে ট্রাম্প এই ভোটারদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, তিনি সুপ্রিম কোর্টে এমন বিচারপতির নিয়োগ দেবেন, যাঁরা তাঁদের ধর্মীয় মূল্যবোধের সঙ্গে সহমত পোষণ করেন। গত তিন বছর তিনি দুজন সেই রকম কট্টর রক্ষণশীল বিচারপতিকে মনোনয়নও দিয়েছেন।

Facebook Comments Box

Contact us

বাংলা কাগজ এ আপনাকে স্বাগতম।

X
Social media & sharing icons powered by UltimatelySocial
Facebook91m
Twitter38m
LinkedIn4m
LinkedIn
Share