Category: স্থানীয় সরকার

পঞ্চম ধাপে ভোট দিচ্ছে ২৯ পৌরসভা ও ৪ উপজেলা

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : পৌরসভা নির্বাচনের পঞ্চম ধাপে মেয়র ও কাউন্সিলর পদে নতুন জনপ্রতিনিধি বেছে নিতে ভোট দিচ্ছেন ২৯ পৌর এলাকায় পৌনে ১৪ লাখ ভোটার।

এ ছাড়া কুমিল্লার দেবিদ্বার, শৈলকুপা, ফরিদপুরের মধুখালী ও রাজশাহীর পবায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচন হচ্ছে।

রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে এসব এলাকায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে, চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

আগের ৪ ধাপের পৌর ভোটে গোলযোগ-সহিংসতায় উদ্বেগের মধ্যে নির্বাচন কমিশন এবার ‘কঠোর পদক্ষেপ’ নেওয়ার কথা জানিয়েছে।

নির্বাচনি এলাকায় পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবির বাড়তি সদস্য মাঠে নেমেছেন। আইন-শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে নির্বাহি ও বিচারিক হাকিমরাও মাঠে রয়েছেন।

ইসি সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকার বাংলা কাগজকে বলেন, ‘নির্বাচনের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার জন্য সমস্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। আমরা আশা করি- ফ্রি, ফেয়ার, পার্টিসিপেটারি এবং উৎসবমুখর পরিবেশে একটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’

করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে এ নির্বাচনে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই ভোটগ্রহণের ব্যবস্থা হয়েছে বলে আশ্বস্ত করেছে ইসি।

মেয়র পদে দলীয় প্রতীকের এ ভোটে কয়েকটি দল অংশ নিলেও বরাবরের মতই মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে নৌকা ও ধানের শীষের প্রার্থীদের মধ্যে।

ভোট তথ্য : ইসির জনসংযোগ পরিচালক যুগ্মসচিব এস এম আসাদুজ্জামান বাংলা কাগজকে জানান, এ ধাপে নির্বাচনি লড়াইয়ে মেয়র পদে রয়েছেন ১০০ প্রার্থী। আর সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৪২ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১ হাজার ২৭০ জন প্রার্থি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

২৯ পৌরসভায় ভোটার রয়েছেন ১৩ লাখ ৮৪ হাজার ১৬৫ জন।

১৯ জানুয়ারি পঞ্চম ধাপে নির্বাচনের জন্য ৩১ পৌরসভার তফসিল ঘোষণা করে ইসি। পরে অন্য ধাপ থেকে পঞ্চমে যুক্ত হয় নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভা।

অন্যদিকে উচ্চ আদালতের রায়ের কারণে যশোর পৌরসভার ভোট স্থগিত করা হয়। ভোটগ্রহণের আগ মুহূর্তে জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করেছে ইসি।

চট্টগ্রামের রাউজান পৌরসভায় মেয়র ও কাউন্সিলরসহ সব পদে প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পেয়েছেন। ফলে সব মিলিয়ে ২৯ পৌরসভায় ভোট হচ্ছে রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি)।

যেসব পৌরসভায় ভোট : চট্টগ্রামের মীরসরাই, বারইয়ারহাট ও রাঙ্গুনিয়া; জামালপুর সদর, মাদারগঞ্জ ও ইসলামপুর; রাজশাহীর চারঘাট ও দুর্গাপুর; ভোলা সদর ও চরফ্যাশন; চাঁদপুরের মতলব ও শাহরাস্তি; ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ ও মহেশপুর; লক্ষ্মীপুরের রায়পুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল, হবিগঞ্জ সদর, বগুড়া সদর, মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর, কিশোরগঞ্জের ভৈরব, যশোরের কেশবপুর, মাদারীপুর সদর, রংপুরের হারাগাছ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, জয়পুরহাট সদর, মাদারীপুরের শিবচর, ময়মনসিংহের নান্দাইল ও গাজীপুরের কালীগঞ্জ এবং নীলফামারীর সৈয়দপুর।

৪ ধাপে ফল : আওয়ামী লীগ ১১৫, বিএনপি ১০, স্বতন্ত্র ৩০।

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে এবার ৬ ধাপে পৌরসভা নির্বাচন করছে কমিশন।

প্রথম ধাপের তফসিলের ২৪টি পৌরসভায় ইভিএমে ভোট হয় ২৮ ডিসেম্বর। ১৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় ধাপের, তৃতীয় ধাপের ভোট হয় ৩০ জানুয়ারি এবং চতুর্থ ধাপে ভোটগ্রহণ হয় ১৪ ফেব্রুয়ারি।

সবশেষ চতুর্থ ধাপে আওয়ামী লীগের ৪৬ জন, বিএনপির ১ জন ও ৫ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী মেয়র হিসেবে জয়ি হন। তৃতীয় ধাপে আওয়ামী লীগের ৪৬ জন, বিএনপির ৩ জন ও স্বতন্ত্র ১৪ জন মেয়র নির্বাচিত হন।

দ্বিতীয় ধাপে আওয়ামী লীগের ৪৫ জন, বিএনপির ৪ জন, জাতীয় পার্টির ১ জন, জাসদের ১ জন এবং ৮ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী মেয়র পদে বিজয়ি হন।

আর প্রথম ধাপে আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থিদের মধ্যে ১৮ জন, বিএনপির ধানের শীষের ২ জন এবং ৩ জন স্বতন্ত্র প্রার্থি মেয়র পদে বিজয়ি হন।

সবশেষ ১৫ ফেব্রুয়ারির চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে ভোট পড়েছে ৬৫ দশমিক ৬৮ শতাংশ। এর আগে ২৮ ডিসেম্বরের প্রথম ধাপে ৬৫ শতাংশ, দ্বিতীয় ধাপে ১৬ জানুয়ারির ৬২ শতাংশ এবং ৩০ জানুয়ারির তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে ৭০ দশমিক ৪২ শতাংশ ভোট পড়ে।

রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) পঞ্চম ধাপের ভোট শেষে ১১ এপ্রিল ষষ্ঠ ধাপে ৯ পৌরসভায় ভোট হওয়ার কথা রয়েছে।

এ ছাড়া আগে অনুষ্ঠিত ৭টি পৌরসভায় বন্ধ ঘোষিত ভোটকেন্দ্রগুলোতে এবং মৃত্যুজনিত কারণে চট্টগ্রাম সিটির ৩১ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে, ঝিনাইদহের শৈলকুপা পৌরসভার ৮ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে, পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি পৌরসভার ৮ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ও সিরাজগঞ্জ পৌরসভর ৬ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদেও ভোট হবে এদিন। এরমধ্যে চট্টগ্রাম সিটির ওই ওয়ার্ড ও শৈলকুপায় ভোট হবে ইভিএমে।

ইউপি নির্বাচন : নিজের প্রার্থিদের জেতাতে পাহাড়ে অস্ত্র আনছে সশস্ত্র সংগঠন!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; শহিদুল ইসলাম হৃদয়, রাঙামাটি : প্রথম ধাপে ৩২৩ ইউনিয়ন পরিষদে ভোটগ্রহণ হবে ১১ এপ্রিল। এদিন পার্বত্য চট্টগ্রামের ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে নির্বাচন হবে না।

তবে নির্বাচন কমিশনের লক্ষ্য অনুযায়ি, স্বল্প সময়ের ব্যবধানেই দেশের ইউনিয়নগুলোতে নির্বাচনের আয়োজন করা হবে।

এক্ষেত্রে নির্বাচন হবে পার্বত্য চট্টগ্রামেও।

আর পার্বত্য চট্টগ্রামে এই স্থানীয় সরকার নির্বাচনের ঠিক পূর্ব মুহূর্তে নিজেদের হাত অস্ত্রে ভরে তুলতে চাইছে সশস্ত্র সংগঠনগুলো।

এক্ষেত্রে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যদের ‘ব্যবহার করে’ পূর্বের ন্যায় চাঁদাবাজি চালিয়ে যেতে চায় পাহাড়ি সংগঠনগুলো।

ফলে তাঁরা তাঁদের পছন্দের প্রার্থিগুলোতে নির্বাচনে জয়লাভ করাতে মরিয়া। এরইঅংশ হিসেবে, সশস্ত্র সংগঠনগুলো প্রতিবেশি দেশগুলো থেকে অস্ত্র ও গোলাবারুদ আনা শুরু করেছে।

ধরা পড়েছে এর একটি চালানও।

চালানের সঙ্গে আটককৃত ব্যক্তি পুলিশকে জানিয়েছেন এসব তথ্য।

জানা গেছে, প্রতিবেশি দেশগুলো থেকে অস্ত্র-গোলাবারুদ সংগ্রহ করছে পার্বত্য চট্টগ্রামের বিরাজমান সশস্ত্র তৎপরতায় লিপ্ত উপজাতীয় আঞ্চলিক সংগঠনগুলো।

এখানকার যৌথবাহিনীর নানামুখি তৎপরতায় এবার নতুন ট্রানজিট রুট ব্যবহার করে পাহাড়ে প্রবেশ করাচ্ছে। এরইঅংশ হিসেবে আসছে অত্যাধুনিক মারনাস্ত্র থেকে শুরু করে বিভিন্ন আগ্নেয়াস্ত্রের তাজা গুলি।

এসব অস্ত্র-গোলাবারুদ বান্দরবানের রোয়াংছড়ি দিয়ে আসছে বলেই জানা গেছে।

সূত্র বলছে, প্রাথমিকভাবে ‘পাইলট প্রজেক্ট’ হিসেবে একটি চালান ইতিমধ্যেই পার্বত্য চট্টগ্রামে ‘নিরাপদে নিয়ে আসতে সক্ষমও’ হয়েছে পার্বত্য চুক্তিবিরোধি উপজাতীয়দের একটি আঞ্চলিক সংগঠন।

তবে দ্বিতীয় চালানটি ধরা পড়েছে যৌথবাহিনীর হাতে।

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে ৭টায় রাজস্থলি উপজেলাধীন চন্দ্রঘোনা থানা পুলিশসহ যৌথবাহিনির অভিযানে বাঙ্গালহালিয়া বাজার থেকে সাবেক জনপ্রতিনিধি সুইচাচিং মারমা (৫৩) আটক হন।

আটককৃত সন্ত্রাসি গাইন্দা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য বলেই জানা গেছে।

বিষয়টি বাংলা কাগজকে নিশ্চিত করেছেন রাঙামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) ছুফি উল্লাহ।

চন্দ্রঘোনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল বাহার চৌধুরী বাংলা কাগজকে বলেন, ‘আমরা আটককৃত ব্যক্তির মরিচের বস্তার ভেতর থেকে ৩০টি প্যাকেট উদ্ধার করি। পরবর্তীতে দেখা গেলো যার প্রতিটিতে বিশেষভাবে প্যাকেটিং করা ১০টি করে শর্টগানের তাজা গুলি রয়েছে।’

‘এই ঘটনায় চন্দ্রঘোনা থানায় অস্ত্র আইনের ১৯(এ) ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

‘যার নম্বর : ০৫, তারিখ : ১৯/০২/২০২১ খ্রিস্টাব্দ।’

পুলিশ আরও জানায়, ইতোমধ্যেই এসব অস্ত্র ও গোলাবারুদ বান্দরবানের রোয়াংছড়ি থেকে রাঙামাটি পর্যন্ত নিয়ে আসা ব্যক্তি শনাক্তে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।

‘তাঁকে ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’

‘এ ছাড়া আটককৃত ব্যক্তিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদকালে সে জানিয়েছে, তিনশ পিস শর্টগানের গুলি পার্বত্য চুক্তিবিরোধি সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-এর জন্য ভারতের মিজোরাম থেকে বান্দরবানের রোয়াংছড়ি দিয়ে আনা হয়েছিলো। সেগুলো মরিচের বস্তায় ভরে বিশেষ কায়দায় সন্ত্রাসি সংগঠনটির নিকট হস্তান্তর করতে গেলে গোয়েন্দা নজরদারিতে ধরা পড়ে সুইচাচিং মারমা।’

আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ আরও জানতে পারে, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পাহাড়ি সন্ত্রাসি সংগঠনগুলো এলাকায় অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির লক্ষ্যে মিজোরাম থেকে রোয়াংছড়ি হয়ে বাঙ্গালহালিয়া এলাকায় গুলিগুলো এনেছে।

সূত্রমতে, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে চাঁদাবাজির ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে নির্বাচনকে ঘিরে বেশ তৎপর হয়ে পড়েছে পার্বত্য চট্টগ্রামের সশস্ত্র সংগঠনগুলো।

কাদের মির্জা ও বাদল সমর্থকদের সংঘর্ষে কোম্পানীগঞ্জ রণক্ষেত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে সেতুমন্ত্রীর ছোটভাই মেয়র আবদুল কাদের মির্জার অনুসারীদের সঙ্গে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের কর্মি-সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে।

দু’গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ৩ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

এ ছাড়া অন্তত ৩৫ জন আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে ৭ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের চাপরাশীরহাট বাজারের তরকারি বাজারের সামনে ওই ঘটনা ঘটে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে।

গুলিবিদ্ধরা হচ্ছেন, উপজেলার বড়রাজাপুর গ্রামের আবদুল ওয়াহিদের ছেলে সাইদুর রহমান (২৬), চরকাঁকড়া ইউনিয়নের সিরাজুল ইসলামের ছেলে নুরুল অমিত (২০), বসুরহাট পৌরসভার আবুল কালামের ছেলে রায়হান (২০)।

গুরুতর আহত হয়েছেন : চরফকিরা ইউনিয়নের মো. কাঞ্চন (৬০), মুছাপুর ইউনিয়নের আবুল খায়েরের ছেলে মাসুদ (২৫), চরকাঁকড়া ইউনিয়নের আবদুস সাত্তারের ছেলে কামরুল হাসান (৩০), চরফকিরা ইউনিয়নের আবদুল মান্নানের ছেলে ফরহাদ (৪০), চরফকিরা ইউনিয়নের বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির (২৮), বসুরহাট পৌরসভা এলাকার আদনান (২৪) ও মারুফ (২৫)।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ সেলিম বাংলা কাগজকে আহতদের চিকিৎসা দেবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গুলিবিদ্ধ ৩ জনসহ গুরুতর আহত ৫ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই কাদের মির্জা বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি ভেঙ্গে দিলে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে বিরোধ স্পষ্ট হয়ে ওঠে।

সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে মিথ্যাচারের প্রতিবাদে চরফকিরা ইউনিয়নের চাপরাশীরহাট বাজারে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের ডাক দেয়।

পরে বাদলের অনুসারীরা চাপরাশীরহাট বাজারে মিছিল করতে গেলে কাদের মির্জার সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

পরে সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে কাদের মির্জা উপস্থিত হলে দু’গ্রুপের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দেয় এবং তাঁরা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহিদুল হক রনি বাংলা কাগজকে জানান, ‘পুলিশ ঘটনাস্থলে অবস্থান করছে। বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।’

‘এ ঘটনায় কাউকে আটক করা যায় নি।’

‘এ বিষয়ে পরে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

মামলা ও ‘সীমানা জটিলতায়’ আটকে আছে ভান্ডারিয়া পৌরসভা নির্বাচন!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; জিয়াদুল হক, পিরোজপুর : ২০১৫ সালের ১৪ সেপ্টেম্বরে মন্ত্রিসভার পূনর্বিনাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির (নিকার) একটি সভা হয়।

ওই সভায় পৌরসভা গঠনের সিদ্ধান্তের আলোকে ২০১৫ সালের ২২ সেপ্টেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে ভান্ডারিয়াকে পৌরসভা ঘোষণা হয়।

আর পৌরসভা ঘোষণার পরও গত ৬ বছরে নির্বাচন না হওয়ার মূল কারণ পৌরসভার সীমানা নির্ধারণ নিয়ে একাধিক মামলা হয় আদালতে। এরইঅংশ হিসেবে ২০১৬ ও ২০১৭ সালে দায়ের করা দুটো মামলাই এখন ভান্ডারিয়া পৌরসভা নির্বাচনে গলার কাঁটা।

ওই মামলাগুলোর মধ্যে প্রথম মামলা দায়ের করেন ২০১৬ সালের ১৩ আগস্ট দক্ষিণ ভান্ডারিয়া গ্রামের কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর হোসেন।

সীমানা সংক্রান্ত বিষয় নিষ্পত্তির জন্য তিনি ওই সময় উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন।

অপর মামলাটি আদালতে দায়ের করেন নদমুলা-শিয়ালকাঠি ইউনিয়নের ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল হক।

তিনি পৌরসভার সীমানা নির্ধারণ নিয়ে ২০১৭ সালের ৪ এপ্রিল উচ্চ আদালতে একটি রিট পিটিশন দায়ের করেন।

আদালত শুনানি শেষে দায়েরকৃত মামলা খারিজ করে দেন।

এর পর ২০১৮ সালের ১১ জুলাই আবারও উচ্চ আদালতে হয় আরও একটি মামলা।

সবমিলে মামলাগুলো নিষ্পত্তি না হলে ভান্ডারিয়ার পৌরসভা নির্বাচন হয়ে রয়েছে অনিশ্চিত।

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী, ভান্ডারিয়ার পুরুষ ভোটার ৯ হাজার ৭০৭ জন আর মহিলা ভোটার ৯ হাজার ৯৯৩ জন।

‘গ’ ক্যাটাগরির এ পৌরসভায় জনসংখ্যা ৫১ হাজার ২৩৩ জন।

আয়তনে ১ হাজার ১৯২ বর্গকিলোমিটার।

পৌরসভার নির্বাচন না হওয়ায় কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন হচ্ছে না বলেই জানিয়েছেন পৌরসভাটির জনগণ।

পৌর এলাকাটির অনেক সড়ক ও রাস্তাঘাট দীর্ঘদিনেও মেরামত ও সংস্কার না হওয়ায় ভোগান্তি রয়েছেন পৌর এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে ভান্ডারিয়া নির্বাচন অফিসার গোলাম মোস্তফা বাংলা কাগজকে বলেন, ‘উচ্চ আদালতে একটি রিট পিটিশন বর্তমানে চলমান থাকায় দেশের অন্যান্য পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও ভান্ডারিয়ায় পৌর নির্বাচনে আইনগত জটিলতা থাকায় পৌর নির্বাচন আপাতত সম্ভব নয়।’

ভান্ডারিয়া পৌর প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা (ইউএনও) নাজমুল আলম বাংলা কাগজকে বলেন, ‘ গ’ ক্যাটাগরির পৌরসভা হওয়ায় প্রয়োজনীয় উন্নয়ন বরাদ্দ পাওয়া যাচ্ছে না।

‘ফলে উন্নয়ন ব্যাহত হচ্ছে। উন্নয়ন সুবিধা না পাওয়ায় পৌরসভাবাসি কর প্রদানে অনিহা দেখাচ্ছেন।’

‘ইতোমধ্যে পিরোজপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ার হোসেন মঞ্জু তার মালিকানাধীন জমি থেকে পৌরসভার জন্য ২ বিঘার বেশি জমি দান করেছেন।’

বর্তমানে একটি ভাড়া বাসায় অস্থায়ী কার্যালয় নিয়ে চলছে পৌরসভাটি।

এলজিআরডিমন্ত্রী : এলাকার জনঘনত্ব ও যোগাযোগ ব্যবস্থার ভিত্তিতে ভবনের উচ্চতা

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী ও ড্যাপ রিভিউ কমিটির আহ্বায়ক তাজুল ইসলাম বলেছেন, রাজধানীতে এলাকার জনঘনত্ব ও যোগাযোগ ব্যবস্থার ভিত্তিতে ভবনের উচ্চতা নির্ধারণ করা হবে। স্থপতি, নগর পরিকল্পনাবিদ ও বেসরকারি আবাসনখাত সংশ্লিষ্টসহ অন্যান্য অংশীজনের সঙ্গে আলোচনাসাপেক্ষে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

মন্ত্রী বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) মন্ত্রণালয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের সম্মেলনকক্ষে ড্যাপ বাস্তবায়ন বিষয়ে রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন রিহ্যাব ও বাংলাদেশ ল্যান্ড ডেভলপারস অ্যাসোসিয়েশন (বিএলডিএ) এর প্রতিনিধিদের নিয়ে অনুষ্ঠিত সভায় একথা বলেন।

তিনি জানান, রাজধানীতে এলাকাভিত্তিক জনঘনত্ব নির্ধারণ করে জোনভিত্তিক ভবনের উচ্চতা নির্ধারণ করা হবে। শহরের কোন অঞ্চলে কত তলা বিল্ডিং হলে সকল নাগরিক সুযোগ-সুবিধা পাবে এবং ঢাকা একটি বাসযোগ্য, আধুনিক ও দৃষ্টিনন্দন শহরে রূপান্তরিত হবে, সে অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এলাকাভিত্তিক হোল্ডিং-ট্যাক্স, পানি, গ্যাস, বিদ্যুৎসহ অন্যান্য ইউটিলিটি সার্ভিসের চার্জ নির্ধারিত হওয়ার উপর গুরুত্বারোপ করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী প্রশ্ন তুলে বলেন, অভিজাত এলাকায় বসবাসকারি এবং যাত্রাবাড়ী অথবা ওয়ারীতে বসবাসকারি মানুষ কেন সমান রেট বহন করবেন? পৃথিবীর অনেক দেশেই এলাকাভিত্তিক ইউটিলিটি সার্ভিসের মূল্য নির্ধারণ করা হয়ে থাকে। এটি নিয়ে সমালোচনা হলেও এ বিষয়ে আমাদের একটি সিদ্ধান্তে উপনীত হতে হবে।

তাজুল ইসলাম আরও বলেন, আমাদের সকলের উদ্দেশ একটাই। সেটি হচ্ছে ঢাকা নগরীকে বাসযোগ্য, দৃষ্টিনন্দন ও আধুনিক করে গড়ে তোলা। আর এজন্যই ড্যাপের মতো দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। তাই ড্যাপ বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব শহীদ উল্লাহ খন্দকারের সভাপতিত্বে সভায় স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, রাজউকের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শফিউল্লাহ, ড্যাপের প্রকল্প পরিচালক আশরাফুল ইসলাম, বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান ও বিএলডিএর সভাপতি আহমেদ আকবর সোবহান এবং রিহ্যাব সভাপতি আলমগীর শামসুল আলামিনসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা অনু্ষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

ত্রিশালে তৃতীয়বারের মতো মেয়র হলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; এনামুল হক, ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহের ত্রিশাল পৌরসভার মেয়র পদের নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী এ বি এম আনিসুজ্জামান (আনিস) জগ প্রতিক নিয়ে জয়লাভ করেছেন।

বিষয়টি রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) রাতে বাংলা কাগজকে নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত জেলা নির্বাচন অফিসার সফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, এ বি এম আনিসুজ্জামান (আনিস) জগ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১১ হাজার ৬৫৯ ভোট।

‘তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নৌকা প্রতিক নিয়ে নবী নেওয়াজ সরকার পেয়েছেন ৬ হাজার ৬১৪ ভোট। বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রুবায়েত হোসেন শামীম মন্ডল ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৮৬৫ ভোট। বাংলাদেশ ইসলামি আন্দোলনের হাসান মাহমুদ হাতপাখা প্রতীকে পেয়েছেন ৮শ ভোট।’

ত্রিশাল পৌরসভায় মেয়র পদে চারজন, কাউন্সিলর পদে ৩৬ জন ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১১ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।

পৌরসভাটিতে ১৪টি কেন্দ্রের ৭৮টি কক্ষে ভোটগ্রহণ হয়। ৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ২৬ হাজার ৮২২ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১৩ হাজার ২৩০ জন ও নারী ভোটার ১৩ হাজার ৫৯২ জন।

চতুর্থ ধাপে ৫৫ পৌরসভায় মেয়র হলেন যাঁরা

ডেস্ক, বাংলা কাগজ : চতুর্থ ধাপে মোট ৫৫টি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ হয়েছে। ফলাফলে মেয়র পদে অধিকাংশ জয় পেয়েছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীরা।

রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ শেষে ফলাফল ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

বাংলা কাগজ প্রতিবেদকদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার মেয়র হলেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া পৌরসভায় মেয়র হয়েছেন আওয়ামী লীগের মো. তাকজিল খলিফা কাজল।

রাত পৌনে ৮টার দিকে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ জিল্লুর রহমান নির্বাচনের ফল ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, তাকজিল খলিফা কাজল পেয়েছেন ১৫ হাজার ১৪৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মো. জয়নাল আবেদীন আব্দু পেয়েছেন ৭৭৮ ভোট।

বাগেরহাট পৌরসভায় নৌকার জয় : বাগেরহাট পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী খান হাবিবুর রহমান ১৯ হাজার ২৩৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম বিএনপির মো. সাইদ নিয়াজ হোসেন শৈবাল পেয়েছেন ৩৫৯ ভোট।

এই পৌরসভায় প্রথমবারের মত ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ করা হয়।

এই নিয়ে বাগেরহাট পৌরসভায় পঞ্চমবারের মত খান হাবিবুর রহমান মেয়র নির্বাচিত হলেন।

চাঁদপুরে কচুয়া ও ফরিদগঞ্জ পৌরসভায় নৌকার প্রার্থী বিজয়ী : জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তোফায়েল হোসেন বলেন, কচুয়া পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ প্রার্থী নাজমুল আলম স্বপন ১০ হাজার ২১২ ভোট পেয়ে মেয়র হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আহসান হাবীব প্রাঞ্জল মোবাইল ফোন প্রতীক নিয়ে এক হাজার ৫১ ভোট পেয়েছেন। আর ধানের শীষের প্রতীক নিয়ে ৬৪৭ ভোট পেয়েছেন হুমায়ূন কবীর প্রধান।

ফরিদগঞ্জের মেয়র হযেছেন আওয়ামী লীগের আবুল খায়ের পাটোয়ারী।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তোফায়েল হোসেন বলেন, আবুল খায়ের পাটোয়ারী ১৭ হাজার ভোট পেয়ে মেয়র হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ইমাম হোসেন পাটওয়ারী ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন এক হাজার ৭০৮ ভোট। আর ইসলামী আন্দোলনের দেলোয়ার হোসেন পেয়েছেন হাতপাখা প্রতীকে পেয়েছেন ৭১৮ ভোট।

ফরিদপুরের নগরকান্দার মেয়র হলেন আওয়ামী লীগের নিমাই সরকার : জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. হাবিবুর রহমান জানান, নির্বাচনে মেয়র পদে ২১৯৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী নিমাই সরকার। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মাসুদুর রহমান পেয়েছেন ১২২৮ ভোট।

যশোরের চৌগাছা ও বাঘারপাড়ায় নৌকার জয় : জেলার জ্যেষ্ঠ নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা হুমায়ন আহমেদ বলেন, চৌগাছা পৌরসভায় মেয়র পদে আওয়ামী লীগের নূর উদ্দীন আল মামুন হিমেল ছয় হাজার ৫৪২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী উপজেলা জামায়াতের সহ-সাধারণ সম্পাদক কামাল আহমেদ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে পেয়েছেন তিন হাজার ১৭ ভোট। বিএনপির প্রার্থী আব্দুল হালিম চঞ্চল পেয়েছেন এক হাজার ১০৯ ভোট।

রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, বাঘারপাড়া পৌরসভায় দ্বিতীয়বারের মত মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী কামরুজ্জামান বাচ্চু। তিনি পেয়েছেন চার হাজার ২৫৫ ভোট। তার নিটকতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবু তাহের সিদ্দিকী জগ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন এক হাজার ১০৮ ভোট।

জয়পুরহাটের দুই পৌরসভায় নৌকার জয় : জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম বলেন, কালাই পৌরসভায় নৌকার প্রার্থী রাবেয়া সুলতানা ৯ হাজার ১৭৭টি ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম বিএনপির প্রার্থী সাজ্জাদুর রহমান সোহেল পেয়েছেন ৮০০ ভোট।

নির্বাচন কর্মকর্তা বলেন, আক্কেলপুর পৌরসভায় নৌকা প্রতীক নিয়ে শহীদুল আলম আট হাজার ২৬৮ ভোট নির্বাচিত হয়েছেন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির আলমগীর চৌধুরী বাদশা ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন চার হাজার ৫৮৬ ভোট।

লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে নৌকা বিজয়ী : জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন বলেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থী এম মেজবাহ উদ্দিন মেজু ১০ হাজার ৫২৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম ধানের শীষের প্রার্থী শাহেদ আলী পটু পেয়েছেন ৩৮৭ ভোট।

খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় আওয়ামী লীগের জয় : জেলা নিবার্চন কর্মকর্তা ও রির্টানিং কর্মকর্তা রাজু আহম্মেদ ফল ঘোষণায় বলেন, মাটিরাঙ্গায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী শামছুল হক পাঁচ হাজার ৯৯৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী এমএম জাহাঙ্গীর আলম মোবাইল প্রতীকে পেয়েছেন তিন হাজার ৭৫৮ ভোট।

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ, হোসেনপুর ও বাজিতপুরে আওয়ামী লীগের জয় : জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশ্রাফুল আলম বলেন, করিমগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. মুসলেহ উদ্দিন ১০ হাজার ৮৫০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম বিএনপির আব্দুল্লাহ আল মাসুদ সুমন পেয়েছেন পাঁচ হাজার ৩৫০ ভোট।

নির্বাচন কর্মকর্তা বলেন, হোসেনপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত আব্দুল কাইয়ুম খোকন সাত হাজার ৫১৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী সৈয়দ হোসেন হাছু পেয়েছেন চার হাজার ৪৫১ ভোট।

নির্বাচন কর্মকর্তা বলেন, বাজিতপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত আনোয়ার হোসেন ১৪ হাজার ৫৮৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম বিএনপির এহেসান কুফিয়া পেয়েছেন ৬৯৭ ভোট।

লালমনিরহাটে স্বতন্ত্র প্রার্থী, লালমনিরহাটের পাটগ্রাম পৌরসভায় আওয়ামী লীগের জয় : জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মঞ্জুরুল হাসান ফল ঘোষণায় বলেন, লালমনিরহাট পৌরসভায় স্বতন্ত্র প্রার্থী রেজাউল করিম স্বপন ১১ হাজার ০৩৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের মোফাজ্জল হোসেন পেয়েছেন নয় হাজার ৫৫ ভোট।

রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, লালমনিরহাটের পাটগ্রাম পৌরসভায় আওয়ামী লীগের রাশেদুল ইসলাম সুইট ১২ হাজার ৬১১ ভোট পেয়ে জয় পেয়েছেন।

সাতক্ষীরার মেয়র হলেন বিএনপির তাজকিন আহমেদ চিশতী : জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা নাজমুল কবির বলেন, ২৫ হাজার ৮৮ ভোট পেয়ে মেয়র পদে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপির তাজকিন আহমেদ চিশতী। নিকটতম আওয়ামী লীগের শেখ নাসেরুল হক পেয়েছেন ১৩ হাজার ৫০ ভোট।

শেরপুর ও শেরপুরের শ্রীবরদীর মেয়র হলেন আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা : জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ শানিয়াজ্জামান তালুকদার বলেন, শেরপুর পৌরসভা নির্বাচনে ২৯ হাজার ৬৩৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন। তার নিকটতম বিএনপির এবিএম মামুনুর রশিদ পলাশ পেয়েছেন পেয়েছেন আট হাজার ৭৯৬ ভোট।

শ্রীবরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও রিটার্নিং কর্মকর্তা নিলুফা আক্তার বলেন, শ্রীবরদী পৌরসভায় ছয় হাজার ৯৯০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোহাম্মদ আলী লাল মিয়া। তার নিকটতম বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী আব্দুল হাকিম পেয়েছেন তিন হাজার ৮৪২ ভোট।

টাঙ্গাইলের দুই পৌরসভায় আওয়ামী লীগের জয় : জেলার জ্যেষ্ঠ নির্বাচন কর্মকর্তা এএইচএম কামরুল হাসান বলেন, টাঙ্গাইলের গোপালপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী রকিবুল হক ছানা ১৮ হাজার ৯৬৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী কেএম গিয়াস উদ্দিন পেয়েছেন চার হাজার ২৮৭ ভোট।

নির্বাচন কর্মকর্তা বলেন, কালিহাতী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মোহাম্মদ নুরুন্নবী সরকার ১১ হাজার ৩১০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম বিএনপির আকবর জব্বার পেয়েছেন সাত হাজার ৭৯ ভোট।

ঠাকুরগাঁওয়ের ২ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের জয় : জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা জিলহাজ উদ্দীন বলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী আঞ্জুমান আরা বেগম বন্যা ২৬ হাজার ৫০২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির শরিফুল ইসলাম শরিফ পেয়েছেন পাঁচ হাজার ৩৩৩ ভোট। তাছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী আনোয়ার হোসেন পেয়েছেন এক হাজার ৬৩ ভোট।

রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, রাণীশংকৈল পৌরসভায় নৌকার মোস্তাফিজুর রহমান দুই হাজার ৮০৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের মাহমুদুন নবী পান্না বিশ্বাস পেয়েছেন ৪৪৮ ভোট।

ময়মনসিংহের ত্রিশালে স্বতন্ত্র প্রার্থীর জয় : জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা দেওয়ান মোহাম্মদ সরওয়ার বলেন, ত্রিশাল পৌরসভা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী এবিএম আনিসুজ্জামান আনিস জগ প্রতীক নিয়ে ১২ হাজার ২০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম আওয়ামী লীগ মনোনীত নবী নেওয়াজ সরকার পেয়েছেন সাত হাজার ৪৮৬ ভোট।

নির্বাচনের আগেরদিন নগরকান্দায় বিপুল দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাংলা কাগজ; মিজানুর রহমান, নগরকান্দা (ফরিদপুর) : ফরিদপুরের নগরকান্দায় পৌর নির্বাচনের আগেরদিন (শনিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নগরকান্দা গ্রামের একটি ভোটকেন্দ্রের নিকট থেকে বিপুল দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সহকারি পুলিশ সুপার এস এম মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানে এসব অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

এস এম মহিউদ্দিন বাংলা কাগজকে বলেন, নির্বাচনের দিন এসব অস্ত্র দিয়ে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি করার চেষ্টা ছিলো বলেই আমাদের কাছে খবর ছিলো।

‘ওই খবর পেয়েই আমরা এ অভিযান পরিচালনা করি।’

মহিউদ্দিন আরও জানান, অভিযানে ২৬টি ঢাল ও বিপুল পরিমাণ সুরকি (দেশীয় অস্ত্র টেটার মতো) উদ্ধার করা হয়েছে।

নির্বাচনকেন্দ্র মদিনাতুল উলুম মাদরাসার পাশে ফায়ার সার্ভিসের সামনের একটি বাড়ি থেকেই এসব অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলেই জানান মহিউদ্দিন।

১৪ ফেব্রুয়ারি নির্বাচন : নগরকান্দায় মাইক্রোবাসে দেশীয় অস্ত্রসহ আটক ১

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাংলা কাগজ; মিজানুর রহমান, নগরকান্দা (ফরিদপুর) : ফরিদপুরে নগরকান্দা উপজেলার পৌর সদরে ৫ ফেব্রুয়ারি, শুক্রবার বিকেলে একটি মাইক্রোবাসে অভিযান চালিয়ে দেশীয় অস্ত্রসহ একজনকে আটক করেছে নগরকান্দা থানা পুলিশ।

১৪ ফেব্রুয়ারি নগরকান্দায় ওই পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

নির্বাচনকে সামনে রেখে চলছে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা।

পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদেরভিত্তিতে পৌর সদর বাজারের বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে অবস্থিত মাইক্রোবাস ঢাকা মেট্রো চ-৫১-০৩৪৩ গাড়িতে বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্রসহ একজনকে আটক করে।

নির্বাচনি প্রচারণার সময় নৌকার প্রার্থী নিমাই চন্দ্র সরকারের পোস্টার ব্যবহৃত একটি মাইক্রোগাড়িতে দেশীয় অস্ত্র রাখায় স্থানীয় জনতা গাড়িটি আটক করে নগরকান্দা থানা পুলিশকে খবর দিলে সহকারি পুলিশ সুপার এফ এম মহিউদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম রেজা বিপ্লব, নগরকান্দা থানা উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) রবিউল ইসলাম ও সিরাজুল ইসলাম ও অন্যান্য পুলিশ সদস্য ও জনগণের উপস্থিতিতে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা (ইউএনও) জেতি প্রু গাড়িটি জব্দ করে থানায় নিয়ে যায়।

এ সময় মাইক্রোবাসটি ছাড়িয়ে নিতে নৌকার সমর্থকেরা মিছিল নিয়ে পুলিশের বাধার সম্মুখিন হয়ে তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

এ ব্যাপারে নৌকার প্রার্থী নিমাই সরকার বাংলা কাগজকে বলেন, ‘কেউ ষড়যন্ত্রমূলকভাবে নৌকার পোস্টার লাগিয়ে মাইক্রোটি ব্যবহার করেছে।’

‘আমি এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।’

গ্রেপ্তারের পর এবার বরখাস্ত চেয়ারম্যান মশিউর

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাংলা কাগজ; রাসেল কবির মুরাদ, কলাপাড়া (পটুয়াখালী) : কলাপাড়ার টিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান শিমুকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সহকারি সচিব আবু জাফর রিপন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

বিষয়টি শুক্রবার (৫ ফেব্রুয়ারি) নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) রাতে ওই প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, টিয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান মশিউর রহমান শিমু কর্তৃক সংঘটিত অপরাধমূলক কার্যক্রম পরিষদসহ জনস্বার্থের পরিপন্থী বিধায় স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩৪(১) অনুযায়ী ইউপি চেয়ারম্যানকে তাঁর পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো।

উল্লেখ্য, গত ২৯ নভেম্বর বিকেলে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলমের ঘরে প্রবেশ করে চেয়ারম্যান শিমুর নেতৃত্বে তাঁর ওপর অতর্কিত হামলা চালায় একদল সন্ত্রাসী।

এতে শাহ আলমের হাত-পা ভেঙ্গে যায়।

ঘটনায় ওইদিন সন্ধ্যায়ই মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলমের স্ত্রী আকলিমা বেগম বাদি হয়ে ১১ জনকে আসামি করে কলাপাড়া থানায় মামলা করা হয়।

পুলিশ রাতেই চাকামাইয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে চেয়ারম্যান মশিউর রহমান শিমু ও তাঁর স্ত্রী এলিজাসহ ৫ জনকে গ্রেপ্তার করে।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী : জনস্বাস্থ্য খাতে কাজ করার আগ্রহ দেখিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : যুক্তরাষ্ট্র দেশের সকল সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাগুলোতে জনস্বাস্থ্য খাতে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) মন্ত্রণালয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলারের সাক্ষাতের পর স্থানীয় সরকার মন্ত্রী সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

পোশাক রপ্তানিসহ বিভিন্ন খাতে বাংলাদেশের সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র তাদের ‘Centres for Disease Control and Prevention’-CDC এর আওতায় বাংলাদেশের সিটি করপোরেশন ও পৌরসভাগুলোতে জনস্বাস্থ্য খাতে কাজ করার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের আগ্রহকে মন্ত্রী স্বাগত জানিয়েছেন উল্লেখ করে সাংবাদিকদের বলেন, যুক্তরাষ্ট্র নিজ দেশ ছাড়াও সিঙ্গাপুর ও ফিলিপাইনসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে এই প্রোগ্রাম চালু আছে। তারা বাংলাদেশে এ সংক্রান্ত একটি মডেল বা দর্শন নিয়ে কাজ করবে বলে জানিয়েছেন। সার্বিক দিক পর্যালোচনা করে পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

এর আগে মন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশের অভূতপূর্ব সাফল্যের কথা তুলে ধরে বলেন, সরকারের গৃহীত পদক্ষেপের কারণে পৃথিবীর অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ করোনা মহামারি খুব ভালোভাবেই মোকাবিলা করতে সক্ষম হয়েছে। করোনাকালে সুষ্ঠুভাবে দেশে ইতিহাসের সর্ববৃহৎ ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালিত হয়েছে এবং প্রধানমন্ত্রীর ডাকে ছাত্র-শিক্ষক, সরকারি কর্মকর্তা-সহ সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করেছে বলেও উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পররাষ্ট্রনীতি ‘সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সঙ্গে শত্রুতা নয়’ এই মূলনীতির কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাংলাদেশ প্রতিবেশি দেশসহ পৃথিবীর সকল রাষ্ট্রের সঙ্গে বন্ধুত্ব সম্পর্ক বজায় রেখে উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডসহ করোনাকালে গৃহীত সময়োচিত নানা উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত।

সাক্ষাৎকালে তাঁরা দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।