Category: অপরাধ ও দুর্নীতি এবং রোধ ও দমন

মামুনুলের কথিত শ্বশুরকে নোটিশদাতা আ.লীগ নেতাদের হত্যার হুমকি!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; কাজলা দিদি, ফরিদপুর : হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের সঙ্গে হোটেলে অবস্থান করা জান্নাত আরা ঝর্ণার বাবাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দেওয়ায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় আলফাডাঙ্গা উপজেলার ২ নম্বর গোপালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোনায়েম খান শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) আলফাডাঙ্গা থানায় সাধারণ ডায়েরিও (জিডি) করেছেন।

জান্নাত আরা ঝর্ণার বাবা বির মুক্তিযোদ্ধা ওলিয়ার রহমান ২ নম্বর গোপালপুর ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি। হেফাজতে ইসলামের রাজনীতিতে জড়িতদের সঙ্গে আত্মীয়ের সম্পর্ক গড়ার বিষয়টি গোপন রাখায় কেনো তাঁকে দলের কমিটি থেকে বাদ দেওয়া হবে না, জানতে চেয়ে ১২ এপ্রিল কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ।

সাধারণ ডায়েরিতে মোনায়েম খান উল্লেখ করেন, ওলিয়ার রহমানের পরিবারবর্গ হেফাজতের সঙ্গে জড়িত থাকায় আওয়ামী লীগের কর্মপরিকল্পনা ফাঁস হওয়ার আশঙ্কা থাকায় ১২ এপ্রিল তাঁকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়।

‘নোটিশ দেওয়ার পরদিন ১৩ এপ্রিল সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে শুরু করে ৭টার মধ্যে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা (০০৩৯৩২৯১০৭৪১৮০, ৬০১১১৬৭০৪৮৪০, ৩৭০৫৭৭৯ নম্বর থেকে আমাকে কল করে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে এবং হত্যার হুমকি দেয়।’

‘এ ছাড়া একই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ উদ্দিনের মুঠোফোন নম্বরে (৩১৩২৬৫৫ নম্বর থেকে) ফোন করে মামুনুল হক পরিচয় দিয়ে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে এবং হত্যার হুমকি দেওয়া হয়। এ ঘটনায় আইনের সাহায্য চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছি আমি।’

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ উদ্দিন বাংলাকাগজকে বলেন, ‘ওলিয়ার রহমানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়ায় আমার ব্যক্তিগত মোবাইলে মামুনুল হক পরিচয় দিয়ে ফোন দেন। আমাকে অশ্লীল গালিগালাজ করা হয় এবং হত্যার হুমকি দেওয়া হয়।’

‘আমাকে হুমকি দিয়ে বলা হয়, তোর মনে যা খেতে চায়; খেয়ে নে, আর বেশি দিন বাঁচতে পারবি না।’

আলফাডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওয়াহিদুজ্জামান বাংলাকাগজকে বলেন, হুমকি দেওয়ার ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন গোপালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোনায়েম খান। বিষয়টি আমরা গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি।

এর আগে ১২ এপ্রিল কারণ দর্শানোর নোটিশে বলা হয়, আপনি ওলিয়ার রহমান, গোপালপুর ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি। আপনার বড় জামাতা মো. হাবিবুর রহমান, মেজ জামাতা অর্থাৎ জান্নাত আরা ঝর্ণার সাবেক স্বামি মো. জাফর শহিদুল ইসলাম, সর্বাধিক সমালোচিত আপনার মেজ মেয়ে জান্নাত আরা ঝর্ণার কথিত স্বামি মো. মামুনুল হকসহ সবাই উগ্রপন্থী ইসলামী সংগঠনের (হেফাজতে ইসলাম) সঙ্গে জড়িত। আপনার মেয়ে জান্নাত আরা ঝর্ণা অবৈধ কার্যকলাপে লিপ্ত। এমনকি আরও জানা যায় যে, আপনার স্ত্রীও জামায়াতপন্থী।’

নোটিশে আরও বলা হয়, ওয়ালিয়ার রহমানকে কেনো ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি পদ থেকে বহিষ্কার করা হবে না, তার পক্ষে আগামি ৭ কর্মদিবসের মধ্যে সন্তোষজনক জবাব দেওয়ার অনুরোধ করা হলো।

এ বিষয়ে জানতে গোপালপুর ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ওলিয়ার রহমানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাঁর মুঠোফোন নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়।

ফরিদপুরে চোর সন্দেহে গণপিটুনিতে একজন নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; কাজলা দিদি, ফরিদপুর : ফরিদপুরে চোর সন্দেহে গণপিটুনিতে একজন নিহত হয়েছেন। সোমবার (১২ এপ্রিল) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে সদর উপজেলার গেরদা ইউনিয়নের পশরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তির আনুমানিক বয়স ৩০ বছর। তবে তাঁর পরিচয় জানা যায় নি। তাঁর হাতের আঙ্গুলের ছাপ সংগ্রহ করে পরিচয় শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে।

এলাকাবাসি সূত্রে জানা গেছে, ওই এলাকায় খাবারের মধ্যে চেতনানাশক দ্রব্য মিশিয়ে দেওয়া হয়। তা খেয়ে বাড়ির মানুষ ঘুমিয়ে পড়ার সুবাদে চুরির ঘটনা ঘটে আসছিলো। সোমবার (১২ এপ্রিল) একই এলাকার দিলীপ বিশ্বাস ও তাঁর ভাই আনন্দ বিশ্বাসের বাড়িতে হলুদের গুঁড়ার সঙ্গে চেতনানাশক দ্রব্য মিশিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে সন্দেহ হওয়ায় বাড়ির একজন বাদে কেউ ওই আহার গ্রহণ করেন নি।

এ বিষয়ে দিলীপ বিশ্বাস বলেন, রাত দেড়টার দিকে বাড়ির লোকজন দরজায় টোকা দেওয়ার শব্দ শুনে চিৎকার দিলে গ্রামবাসি এগিয়ে আসে। ওই সময় পলায়নরত দুই-তিন ব্যক্তির মধ্যে একজনকে আটক করে গণপিটুনি দেয় গ্রামবাসি।

খবর পেয়ে রাত আড়াইটার দিকে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গণপিটুনিতে আহত ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই ব্যক্তিকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ফরিদপুর সদর সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার সুমন রঞ্জন সরকার বাংলাকাগজকে বলেন, ওই ব্যক্তির আঙুলের ছাপ সংগ্রহ করা হয়েছে, তাঁর পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।

‘বিষয়টি তদন্তে পুলিশের আপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) একটি দল কাজ করছে।’

যশোরে আড়াই কোটি টাকার সড়কের কাজের শুরুতেই আধা কিলোমিটারে বালির বদলে মাটি!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; মহসিন মিলন, বেনাপোল : যশোরের মনিরামপুরে ২ কোটি ৪৩ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিতব্য একটি পাকা সড়কের কাজে বালির পরিবর্তে মাটি ফেলার অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগের সত্যতা পেয়ে ঠিকাদারকে কাজ বন্ধ রাখতে বলেছেন উপজেলা নির্বাহি প্রকৌশলী সানাউল হক। পাশাপাশি ইতোমধ্যে ফেলা মাটি না সরিয়ে আর কাজ না করার জন্যও বলা হয়েছে ঠিকাদার শাহিনুর রহমানকে।

জানা গেছে, ২ কোটি ৪৩ লাখ টাকায় উপজেলার চালুহাটি ইউনিয়নের শয়লা বাজার মোড় থেকে হরিশপুর বাজারের সংযোগ সড়ক হয়ে রসুলপুর পর্যন্ত প্রায় আড়াই কিলোমিটার রাস্তা পাকাকরণের কাজ শুরু হয় ১ সপ্তাহের কিছু সময় আগে।

ওই কাজ শুরুর পর রাস্তা খোঁড়ার পর ফেলা হয়েছে বালির বদলে মাটি।

জানা গেছে, ঠিকাদার শাহিনুর রহমান এরইমধ্যে প্রায় আধা কিলোমিটার সড়কে বালির বদলে মাটি ফেলেছেন।

বিষয়টি নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে সড়কে বালির বদলে মাটি ফেলার ছবি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে দেন স্থানীয়রা। পরে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহি প্রকৌশলীর নজরে আসলে তিনি মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সরেজমিনে সড়কটি পরিদর্শন করেন।

প্রকৌশলী ঘটনার সত্যতা পেয়ে মাটি সরিয়ে বালি না ফেলে ঠিকাদারকে কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।

এ ব্যাপারে সড়কটি দেখভালের দায়িত্বে থাকা উপ-সহকারি প্রকৌশলী গাউসুল আজম বাংলা কাগজকে বলেন, (সড়কটির) ১০ দিন আগে কাজ শুরু হয়েছে। বালির পরিবর্তে মাটি ফেলানোয় ঠিকাদারকে কাজ বন্ধ রাখতে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

নির্বাহি প্রকৌশলীর পর উপ-সহকারি প্রকৌশলীর এমন তথ্য দেওয়ার পর ঠিকাদার শাহিনুর রহমান বাংলা কাগজ’র কাছে দাবি করেন, ৩০০ থেকে ৩৫০ মিটারের মতো সড়কে ‘বালি ফেলা হয়েছে’। বালির সঙ্গে ‘দুই-একটি মাটির চাক’ পড়েছে।

‘বালির পরিবর্তে মাটি ফেলেছি কথাটা ঠিক না। ইঞ্জিনিয়ার অফিস থেকে কোনও চিঠি পাই নি। মৌখিকভাবে কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশনা পাইছি। মাটির চাকগুলো সরিয়ে ফেলা হচ্ছে।’

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, নির্মিতব্য সড়কটি যতটুকু অংশে বালির বদলে মাটি ফেলা হয়েছে, এর দৈর্ঘ্য প্রায় আধা কিলোমিটার। কিন্তু এমন অবস্থার পর এবার প্রায় ঠিকাদারের সুরেই কথা বললেন উপজেলা নির্বাহি প্রকৌশলী সানাউল হক।

তিনি বাংলা কাগজের কাছে দাবি করেন, ‘অভিযোগ পেয়ে আমি সরেজমিন গিয়েছি। খোঁড়া রাস্তার ৪০০ থেকে ৫০০ মিটার দূরত্বে মাটি মিশ্রিত বালি ফেলা হয়েছে। সেগুলো না সরানো পর্যন্ত কাজ বন্ধ রাখতে ঠিকাদারকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ঠিকাদার এখনো অপসারণ কাজ শুরু করেন নি।’

নওগাঁয় যুবকের রক্তাক্ত লাশ : অভিযোগে আটক ১

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; রহমতউল্লাহ, নওগাঁ : নওগাঁর নিয়ামতপুরে ভারত পাহান (২১) নামের এক যুবকের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় সুবল পাহান (৩৫) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নিহত ভারত পাহান উপজেলার চন্দননগর ইউনিয়নের বুধুরিয়া গ্রামের মৃত হারান পাহানের ছেলে। আটক সুবল পাহান জেলার মহাদেবপুর উপজেলার দোপাড়া গ্রামের মৃত বিনয় পাহানের ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ৫ এপ্রিল রাত সাড়ে ১০টার দিকে সোনারপাড়া গ্রামে ভারত পাহানের রক্তাক্ত লাশ পাওয়া যায়। এলাকাবাসি খবর দিলে তাঁর লাশ উদ্ধার করেন পরিবারের সদস্যরা। উল্লেখ করা যেতে পারে, সোনারপাড়া ভারত পাহানদের পাশের গ্রাম।

এ ব্যাপারে নিয়ামতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ন কবির বাংলা কাগজকে জানান, সুবল পাহান প্রাথমিকভাবে ভারত পাহান হত্যার দায় স্বীকার করেছে। ধারণা করা হচ্ছে, বাকবিতণ্ডা থেকেই এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

‘সুবলকে মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।’

‘হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ভারত পাহানের বোন চঞ্চলা বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।’

টেক্সাসে একই পরিবারের ৬ বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাংলা কাগজ; শাফিনুর রহমান, যুক্তরাষ্ট্র : যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে ৬ বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় বাংলাদেশি এবং বাংলা ভাষাভাষি কমিউনিটিতে ব্যাপক চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে।

টেক্সাসের স্থানীয় সময় সোমবার (৫ এপ্রিল) এলেন শহরের একটি বাড়ি থেকে পুলিশ ওই ৬ মরদেহ উদ্ধার করে।

স্থানীয় বাংলাদেশি কমিউনিটি সূত্রে জানা গেছে, নিহত প্রত্যেকেই বাংলাদেশি। উদ্ধার হওয়া মৃত ব্যক্তিরা হলেন সিটি ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট শাম তৌহিদ, তাঁর স্ত্রী মিসেস নীনা, তাঁদের দুই ছেলে ও এক মেয়ে এবং শাম তৌহিদের বৃদ্ধা মা।

পুলিশের মুখপাত্র সার্জেন্ট জন ফেল্টি বলেন, দুই ভাই নিজেরা ঠিক করেছিলো যে তারা সুইসাইড করবে এবং সেইসঙ্গে পুরো পরিবারকে মেরে ফেলবে। সে অনুযায়ি, তারা হত্যাযজ্ঞ সম্পন্ন করে থাকতে পারে।

‘দুই ভাইয়ের একজন যার বয়স ১৯ বছর সে সোশ্যাল মিডিয়ার একটি দীর্ঘ সুইসাইড নোট রেখে গেছে। তাতে সে নিজেকে মানসিক বিকারগ্রস্ত বলে উল্লেখ করেছে।’

তবে কমিউনিটির লোকজন বলছেন, ওই ছেলে দুটো অনেক মেধাবি ছিলেন এবং তাঁদের কাছে কখনোই ছেলো দুটোকে কখনোই মানসিক বিকারগ্রস্থ বলে মনে হয় নি।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, গত শনিবার (৩ এপ্রিল) তাঁদের মৃত্যু হয়েছে। ঘটনার কারণ বের করতে তদন্ত করছে পুলিশ।

লক্ষ্মীপুরে র‌্যাবের অভিযানে বিদেশি মদ ও নগদ ২৯ লাখ টাকাসহ মাদক ব্যবসায়ি আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; রবিউল ইসলাম খান, লক্ষ্মীপুর : র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-১১) গোপন সংবাদেরভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে লক্ষ্মীপুর শহরের বিসিক শিল্পনগরি এলাকা থেকে নগদ ২৯ লাখ ৯৩ হাজার ৫০০ টাকা, ৫টি বিদেশি মদ, ১টি প্রাইভেট কারসহ মাদক ব্যবসায়ি জহির হোসেন প্রকাশ মিজিকে (৪৪) আটক করেছে।

এ ঘটনায় সোমবার (৫ এপ্রিল) সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে র‌্যাব-১১ লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পের অধিনায়ক খন্দকার শামীম হোসেন বাংলা কাগজকে বলেন, আটককৃত জহির হোসেন প্রকাশ মিঝি ও পলাতক আসামি ওসমান গণি মিণ্টু দীর্ঘদিন যাবৎ মাদক ব্যবসা করে আসছে।

‘গোপন সংবাদ পেয়ে রবিবার (৪ এপ্রিল) বিকেলে র‌্যাব-১১ লক্ষ্মীপুর শহরের বিসিক শিল্প নগরি এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাকিবের ভবন থেকে মিঝিকে আটক করা হয়।’

‘এ সময় তার কাছ থেকে ৫ বোতল বিদেশি মদ, নগদ ২৯ লাখ ৯৩ হাজার ৫০০ টাকা এবং একটি কালো রঙের প্রাইভেট কার উদ্ধার করা হয়।’

‘এ ঘটনায় সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

২ চোর আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; ইমদাদুল হক, পাইকগাছা (খুলনা) : পাইকগাছা থানা পুলিশ গোপন সংবাদেরভিত্তিতে রাড়ুলী থেকে চোরাই আলম সাধুসহ ২ চোর আটক করেছে।

এ ঘটনায় আলম সাধুর মালিক কয়রা থানার গড় আমাদী গ্ৰামের মনিরুল ইসলাম বাদি হয়ে পাইকগাছা থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

জানা গেছে, কয়রা থানার গড় আমাদী গ্ৰামের জনৈক মনিরুল ইসলামের আলমসাধু কয়রা থানার ইসলামপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলাম (২৯) ও জুয়েল সানা (৩৬) নামে দুই চোর বৃহস্পতিবার (পহেলা এপ্রিল) রাতে চুরি করে পালিয়ে যাওয়ার সময় পাইকগাছা থানার রাড়ুলী শষ্টীতোলা বাজার থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে এ বিষয়টি জানতে পারেন পাইকগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এজাজ শফী। তিনি প্রাপ্ত গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চোর ধরতে রাড়ুলী পুলিশ ফাঁড়িকে নির্দেশ প্রদান করেন।

এ ঘটনায় আলম সাধুর মালিক মনিরুল ইসলাম বাদি পাইকগাছা থানায় মামলা দায়ের করেছে। যার নম্বর : ১ তারিখ : ১/৪/২১ খ্রিস্টাব্দ।

সোলাদানায় সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পক্ষের মামলা : ২১০ অজ্ঞাতসহ আসামি ৩৯৫ : আটক ৪

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; ইমদাদুল হক, পাইকগাছা (খুলনা) : পাইকগাছায় সোলাদানা ইউনিয়নে নির্বাচনি পোস্টার লাগানোকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট সংঘর্ষে প্রার্থি আব্দুল মান্নান গাজীর কর্মি সমর্থক ও বর্তমান চেয়ারম্যান এবং প্রার্থি এস এম এনামুল হকসহ উভয় পক্ষের শতাধিক কর্মি সমর্থক আহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় মান্নান গাজীর ভাই রবিউল ইসলাম বাদি হয়ে ৬৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৫০/৬০ জনের নামে গত ২৮ তারিখে মামলা করেন। এর দুইদিন পর বর্তমান চেয়ারম্যান এস এম এনামুল হক বাদি হয়ে ১২২ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত ১০০/১৫০ জনের নামে ৩০ মার্চ পাইকগাছা থানায় মামলা করেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সোলাদানা ইউনিয়নে গত ২৭ মার্চ সকালে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থি ও বর্তমান চেয়ারম্যান এস এম এনামুল হকের কর্মি সমার্থকেরা ওই ইউনিয়ন পরিষদের দারুল উলুম মাদরাসার মোড়ে নির্বাচনি পোস্টার টানানোকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জড়ান। এতে চেয়ারম্যান এনামুল হকসহ উভয়পক্ষের শতাধিক ব্যক্তি আহত হন।

আহতদের পাইকগাছা হাসপাতালে নেওয়ার পরও অবস্থার অবনতি হলে তাঁদেরকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বর্তমানে চেয়ারম্যান এনামুল হকের অবস্থা আরও খারাপ হওয়ায় তাঁকে সিটি মেডিক্যাল কলেজের হাসপাতালের আইসিইউতে রাখা হয়েছে।

এ ঘটনায় আব্দুল মান্নানের ভাই রবিউল ইসলাম রবি বাদি হয়ে ৬৩ জনের নাম উল্লেখ করে পাইকগাছা থানায় মামলা করে। যার নম্বর ৩১।

অপরদিকে চেয়ারম্যান এনামুল হক গুরুতর অসুস্থ থাকার কারণে ঘটনার ৩ দিন পর থানায় ১২২ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন। যার নম্বর ৩৩।

এ ঘটনায় ওইদিনই পাইকগাছা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৪ জনকে আটক করে।

উভয় পক্ষের মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পাইকগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আশরাফুল আলম বলেন, সঠিকভাবে তদন্ত সম্পন্ন করা হবে। অহেতুক কাউকে মামলায় জড়ানো হবেনা।

মান্দায় জমি নিয়ে বিরোধ : মারপিটে আহত অন্তত ৪

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; এ কে এম কামাল উদ্দিন টগর, নওগাঁ : নওগাঁর মান্দায় জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের মারপিটে অন্তত ৪ জন আহত হয়েছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার (২ এপ্রিল) সকাল ৮টায় উপজেলার পরানপুর ইউনিয়ন পরিষদের বান্দাইপুর গ্রামে।

আহতরা হলেন, বান্দাইপুর গ্রামের মৃত আকরাম আলী মৃধার ছেলে সাজেদুল ইসলাম (৩০), তাঁর মা আজিরন বেওয়া (৬৫) এবং তাঁর স্ত্রী মেরিনা বেগম (২৬)।

এ ছাড়া আহত হয়েছেন প্রতিপক্ষের হাজেরা বেগম নামের আরও একজন।

জানা গেছে, ৮ বছর পূর্বে সাজেদুল ইসলাম একই এলাকার আব্দুর রাকিব মৃধার (৪৫) নিকট থেকে বান্দাইপুর মৌজায় ৭ শতাংশ জমি কেনেন।

জমি ক্রয়ের কিছুদিন পর জমি বিক্রেতার উত্তরাধিকারেরা ওই জমির মধ্যথেকে ৪ শতক জমি দখল করে নিলে জমির ক্রয়সূত্রে মালিক সাজেদুল অন্য দাগে ৪ শতাংশ জমি দখল করে টিন দিয়ে বসত বাড়ি নির্মাণ করেন।

প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান, এরপরও সাজেদুলের নির্মাণকৃত ওই বাড়িতে শুক্রবার (২ এপ্রিল) সকালে জমি বিক্রেতা আব্দুর রাকিব, তাঁর স্ত্রী হাজেরা এবং ছেলে তারেক হামলা চালান।

এ সময় উভয়ের মারপিটে অন্তত ৪ জন আহত হন।

আহতদেরকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছেন।

এ ব্যাপারে আব্দুর রাকিবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাংলা কাগজের কাছে দাবি করেন, ‘সাজেদুল ইসলামের মারপিটে তাঁর স্ত্রী হাজেরা বেগম আহত হয়েছেন।’

এ ব্যাপারে মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাংলা কাগজকে বলেন, বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি।

‘তবে এখনও অভিযোগ পাই নি। অভিযোগ পেলে তদন্তসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

পিরোজপুরের কাউখালীতে গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলা কাগজ; জিয়াদুল হক, পিরোজপুর : পিরোজপুরের কাউখালীতে আবু বকর সিদ্দিক নামে এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পিরোজপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, শুক্রবার (২ এপ্রিল) দুপুর ১টা ৩০ মিনিটের দিকে আবু বকর সিদ্দিক তাঁর নিজ বাসায় গিয়ে সবার অজান্তে জানালার সঙ্গে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস দেন।

পরে বাসার লোকজন দেখতে পেয়ে তাঁকে নামিয়ে দ্রুত কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আবু বকরকে মৃত ঘোষণা করেন।

উপজেলার আসপর্দ্দি গ্রামের নজরুল ইসলামের ছোট ছেলে ছিলেন আবু বকর সিদ্দিক।

প্রায় দেড় বছর আগে বিয়ে করেন তিনি। আত্মহত্যার বিষয়ে পরিবারের লোকজন কিছুই বলতে পারেন নি।

কাউখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম বাংলা কাগজের কাছে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

চান্দিনায় গাড়ি চাপায় মোটরসাইকেল আরোহি নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাংলা কাগজ : কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে গাড়ি চাপায় এক মোটরসাইকেল আরোহি নিহত হয়েছেন।

নিহত ওই ব্যক্তির নাম জাকির হোসেন। ৩৭ বছর বয়সি জাকির হোসেন বৃহস্পতিবার (পহেলা এপ্রিল) বিকেল ৪টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুটুম্বপুর ‘সামিট পাওয়ার’ এলাকায় ওই দুর্ঘটনার কবলে পড়েন।

জাকির কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামের আশ্রাফ উদ্দিন মাস্টার বাড়ির মোহাম্মদ আলীর ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শি সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা থেকে কুমিল্লায় যাওয়ার পথে বেপরোয়া গতিতে আসা একটি বাস মোটরসাইকেলটিকে পেছন দিক থেকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ওই মোটরসাইকেল আরোহির।

হাইওয়ে পুলিশের ইলিয়টগঞ্জ ফাঁড়ির ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) সালেহ্ আহমেদ বাংলা কাগজকে বলেন, কোন গাড়ি ধাক্কা দিয়েছে, সেটি বের করার চেষ্টা করছি। আর ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার করেছি এবং নিহতের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছি।

ধর্মের নামে নাশকতা : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষকে সংগঠিত হতে বললেন আইজিপি

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাংলা কাগজ; ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ‘ধর্মের নামে নাশকতা চলছে’ উল্লেখ করে এর বিরুদ্ধে স্থানীয়দেরকে সংগঠিত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ।

হেফাজতে ইসলামের সাম্প্রতিক সহিংসতায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন স্থান বৃহস্পতিবার (পহেলা এপ্রিল) পরিদর্শন করে প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন পুলিশ প্রধান।

স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তির অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ বিভিন্ন জেলায় সরকারি স্থাপনায় হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগসহ ব্যাপক তাণ্ডব চালায় কওমি মাদরাসাভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামের সমর্থকেরা।

গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ এই ৩ দিন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে চট্টগ্রাম ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়।

পুলিশের মহাপরিদর্শক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষের উদ্দেশে বলেন, ‘আপনাদের সাথে ১৮ কোটি মানুষ আছে, আপনাদের সাথে আইন আছে। যে রক্তের হোলিখেলা এখানে হয়েছে, তা বরদাস্ত করবেন না আপনারা। সেজন্য সকলকে সংগঠিত হতে হবে।’

বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘এই শহরে ৩ লাখ মানুষের বসবাস। এই এলাকায় ৫৭৪টি মাদ্রাসা আপনারা তৈরি করেছেন। এখানে ১ লাখ ৩ হাজারের মতো শিক্ষার্থি আছে। প্রতি বছর এখানে টাকা দিচ্ছেন আপনারা।’

‘দীনের খেদমতের জন্য আপনারা মাদরাসা বানিয়েছেন, আপনারাই বারবার মার খাচ্ছেন। আপনাদের সম্পদই নষ্ট হচ্ছে। ভূমি অফিস জ্বালিয়ে দিয়েছে। রেকর্ড অফিস জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। দুইশ-আড়াইশ বছরের রেকর্ড পুড়ে গেছে।’

‘এতে জমি নিয়ে মামলা-মোকদ্দমা হবে, সুবিধাবাদিরা দখল করবে আর গ্রামের সাধারণ মানুষ নিপীড়ন ও বঞ্চনার শিকার হবে।’

‘এতে কার ক্ষতি হবে? গ্রামের নিরিহ মানুষের ক্ষতি হবে। গত দুই দিনে যে ক্ষতি হয়েছে, বিশেষ করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের ভূমি অফিসে যে ক্ষতি হয়েছে, তা ৫০ বছরেও সেই রেকর্ড ব্যবস্থা ঠিক হবে কিনা আমি জানি না।’

‘হাটহাজারিতেও রেকর্ড একত্র করে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর ফলে হাটহাজারি অঞ্চলের মানুষকে ৫০ বছরের জন্য শাস্তি ভোগ করতে হবে। কাকে আপনারা এই কালেকটিভ পানিশমেন্ট দিচ্ছেন?’

‘এমন কোনও বছর নেই যে, তাণ্ডব দেখে নি চট্টগ্রাম ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার লোক। তারা রাষ্ট্রীয় সম্পদের ক্ষতি করছে। ক্ষোভটা কোথায়?’

কারও কাছে হেফাজতের তাণ্ডবের ছবি, ভিডিও বা কোনও তথ্য থাকলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দেওয়ার আহ্বান জানান পুলিশের মহাপরিদর্শক।